নিউ ইয়র্ক: এর আগে বিড়ালের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়েছিল। তবে এবার প্রথম বাঘের শরীরে ধরা পড়ল সেই ভাইরাস।

শুধু একটি বাঘ নয়।নিউ ইয়র্কের ওই চিড়িয়াখানায় একাধিক বাঘের শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা গিয়েছে বলে জানিয়েছে আমেরিকার এগ্রিকালচার বিভাগের ভেটেনারি সার্ভিস ল্যাবরেটরি। আপাতত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ওই চিড়িয়াখানা।

নিউ ইয়র্কের ব্রংকস চিড়িয়াখানায় একাধিক বাঘ ও সিংহকে সম্প্রতি অসুস্থ হয়ে পড়তে দেখা যায়। প্রত্যেকেরই শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এরপর ওই বাঘটিকে পরীক্ষা করা হয়। চার বছর বয়সী মালয়েশিয়ান বাঘটির নাম নাদিয়া।

শুধু এই বাঘটিই নয়, বাঘটির বোন সহ আরও দুটি বাঘ ও তিনটি আফ্রিকার সিংহের শুকনো কাশি হতে দেখা যায়। যেহেতু পশুদের অজ্ঞান করে পরীক্ষা করতে হয়, তাই সব পশুকে পরীক্ষা না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পশু চিকিৎসকরা।

চিড়িয়াখানার এক কর্মীর শরীরব থেকে ওই ভাইরাস পশুদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে। আপাতত ওই বাঘগুলিকে আলাদা করে রাখা হয়েছে, যাতে বাকি পশুদের শরীরে ভাইরাস না ছড়িয়ে পড়ে। এমনিতে গত ১৬ মার্চ থেকে ওই চিড়িয়াখানা বন্ধ রাখা হয়েছে।

তবে বাঘগুলির খিদে কমে গেলেও আপাতত তারা সুস্থ আছে বলেও জানা গিয়েছে।

যদিও পোষ্যদের ক্ষেত্রেও সতর্কতা মেনে চলার নির্দেশ আগেই দেওয়া হয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত আমেরিকার কোনও পোষ্যের শরীরে এই ভাইরাস দেখা যায়নি। আমেরিকায় এই প্রথম কোনও পশুর শরীরে এই ভাইরাস দেখা গেল।

এর আগে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে একটি বিড়াল। বেলজিয়ামের এই খবরে বেশ আতঙ্কিত হয়ে পড়ে মানুষ।

তবে এই প্রথম নয়। এর আগে হংকং-এ ১৭টি কুকুর ও ৮টি বিড়ালের উপর করোনা পরীক্ষা করা হয়। কিন্তু তার মধ্যে মাত্র ২টি কুকুরের রিপোর্টে পজিটিভ কোভিড ১৯ পাওয়া যায়। জানা যায়, এই কুকুর-বিড়ালগুলি করোনা আক্রান্তের সংষ্পর্শে এসেছিল। সেখান থেকেই এদের শরীরে ও করো না সংক্রমণ হয়েছে। তবে এদের থেকে অন্য পশু বা মানুষের মধ্যে সংক্রমণ হওয়ার সম্ভাবনা কম বলেই জানান বিশেষজ্ঞরা। তা সত্বেও এভাবে চিড়িয়াখানায় করোনা ছড়িয়ে পড়ার খবর রীতিমত উদ্বেগের।