প্রতীকি ছবি

নয়াদিল্লি: ৭৩ তম স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করছে ভারত। সকালেই লাল কেল্লা থেকে পতাকা উত্তোলন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তারপরই দেশবাসীর উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন তিনি। এবার মোদীর ভাষণের মূল বিষয় হবে ‘নিউ ইন্ডিয়া’ বা নতুন ভারত। আর সেই নতুন ভারতে নজিরবিহীনভাবে প্রধানমন্ত্রীকে সাহায্য করবেন তিন মহিলা বায়ুসেনা অফিসার।

বৃহস্পতিবার স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে মোদীর সঙ্গে থাকবেন তিন মহিলা। থাকবেন ফ্লাইং অফিসার প্রীতম সাংওয়ান। তিনি প্রধানমন্ত্রীকে পতাকা উত্তোলনে সাহায্য করবেন। আর মোদীর দু’পাশে স্যালুটিং ডায়াসে থাকবেন ফ্লাইট লেফট্যানেন্ট মানসী গেড়া ও ফ্লাইট লেফট্যানেন্ট জ্যোতি যাদব।

এবছর স্বাধীনতা দিবসে লাল কেল্লা থেকে ষষ্ঠবার ভাষণ দিতে চলেছেন মোদী। লোকসভা নির্বাচনে দ্বিতীয়বার জয়ের পর এটাই তাঁর প্রথম ভাষণ। এই অনুষ্ঠানের জন্য ৩৫০০ ছাত্রীকে নিয়ে আসা হয়েছে দেশের ৪১টি সরকারি স্কুল থেকে। এসেছে ৫০০০ ছাত্র ও ৭০০ এনসিসি ক্যাডেট।

লালকেল্লার তিন কিমি ব্যাসার্ধের মধ্যে জঙ্গি হামলার বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে দিল্লি পুলিশকে। দিল্লির ১৭টি জায়গাকে স্পর্শকাতর বলেও চিহ্নিত করা হয়েছে। পাশাপাশি দেশের সব বড় বিমানবন্দরগুলিতেও সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

গোয়েন্দা রিপোর্ট বলছে, দেশে ইতিমধ্যেই আফগান পাসপোর্ট নিয়ে দু থেকে চার জঙ্গি ভারতে প্রবেশ করে থাকতে পারে। দিল্লির পার্শ্ববর্তী রাজ্যগুলিকে সতর্ক করে বলা হয়েছে, দিল্লিগামী বাসে বিশেষ নজরদারি চালাতে।

অন্যদিকে গুজরাত সরকারের তরফে পুলিশকে ইদ ও স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে বাড়তি সতর্কতার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। গুজরাতের মুখ্যসচিব এবং ডিজিপি ইতিমধ্যেই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে পদস্থ পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন। বিশেষ করে নজর দেওয়া হচ্ছে সীমান্তের জেলা এবং জলসীমায়। সারা দেশেই বাড়তি সতর্কতার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কারণ ইতিমধ্যেই সংসদে ৩৭০ ধারা বিলোপ এবং জম্মু ও কাশ্মীরকে দ্বিখণ্ডিত করার ব্যাপারে বিল পাশ হয়েছে। ফলে সেখানকার জঙ্গিরা হামলা চালাতে পারে বলে অনুমান।