চন্ডীগড়: প্রায় ছ’বছর পর ‘আপনা ঘর’ যৌন নিগ্রহ ঘটনায় তিন মূল অভিযুক্তের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের নির্দেশ দিল বিশেষ সিবিআই আদালত৷ সাজাপ্রাপ্ত আসামীরা হল যইসওয়ান্তি সিং, তার জামাই জয় ভগবান এবং গাড়ির চালক সতীশ৷ যইসওয়ান্তির ভাই যইসওয়ান্তের সাত বছরের সাজা হয়েছে৷ শুক্রবার এদের সাজা ঘোষণা করেন সিবিআই বিচারপতি জগদীপ সিং৷

আরও পড়ুন: সুপ্রিম কোর্টে কাঠুয়া মামলা স্থগিত ৭ মে পর্যন্ত

এছাড়া এদিন যইসওয়ান্তির মেয়ে সুষমা ওরফে সিমি, সতীশের বোন শীলা এবং বীনাকেও দোষী সাব্যস্ত করেন বিচারপতি জগদীপ সিং৷ তবে বিচারপ্রক্রিয়া চলেছে যতদিন ধরে, ততদিনই তাদের শাস্তি প্রাপ্য ছিল৷ ফলে নতুন করে কোনও শাস্তির বিধান দেননি বিচারক৷ অভিযুক্ত রোহিনী এবং রাম প্রকাশ সাইনিকে মুক্ত দিলেও তাদের নজরবন্দি রাখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত৷

রোহাতকে ‘আপনা ঘর’ নামে একটি এনজিও চালাতেন যইসওয়ান্তি সিং৷ অসহায়, প্রতিবন্ধী ও অনাথ মেয়েদের এখানে রাখা হত৷ ২০১২ সালে ৭ মে ‘আপনা ঘর’ থেকে পালিয়ে যায় তিন নাবালিকা৷ এরপরই সামনে আসে কীভাবে দিনের পর দিন আবাসিকদের উপর যৌন নির্যাতন করা হত সেই কাহিনী৷

আরও পড়ুন: সরকারি চাকরি পেতে বাবাকেই খুনের সুপারি

জানা যায়, অসহায়তার সুযোগ নিয়ে আবাসিকদের একাধিকবার ধর্ষণ করা হত৷ ধর্ষণের জেরে কয়েকজন অন্তসত্ত্বা হয়ে পড়ে৷ এক মূক বধির মেয়ে একটি সন্তানের জন্ম দেন৷ কিন্তু তাকে না জানিয়ে সেই সদ্যজাতকে বিক্রি করে দেয় অভিযুক্তরা৷ প্রত্যেকটি ধর্ষণের ক্ষেত্রে নাম উঠে আসে সতীশ, যসওয়ান্ত ও জয় ভগবানের৷

আপনা ঘর থেকে ১২০ জন আবাসিককে উদ্ধার করে শিশু সুরক্ষা কমিশন৷ কমিশনের অভিযোগের ভিত্তিতে সাত জনকে গ্রেফতার করা হয়৷ ঘটনার তদন্তভার যায় সিবিআইয়ের হাতে৷ পরবর্তীকালে আরও দু’জনকে গ্রেফতার করে সিবিআই৷