ফাইল ছবি

কলকাতা: শহরের বুকে ফের মাদক দ্রব্যের খোঁজ। এবার চিংড়িঘাটা ক্রসিং থেকে ৬ কেজি মাদক সহ ৩ জনকে গ্রেফতার করল পুলিশের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স। আটক হওয়া ওই ৬ কেজি মাদকের আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় ৫০ লাখ টাকা।

আটক হওয়া তিনজনের মধ্যে দুইজন বাকি বিল্লা গাজি ও আক্তারুল গাজি পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা। অন্য একজন আলী আহমেদ মণিপুরের বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে।

চিংড়িঘাটা ক্রসিংয়ের কাছে ওই তিনজনকে আটক করে স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের বিশেষ টিম। এরপর তল্লাশি চলাকালীন উদ্ধার হয় প্রচুর মাদকদ্রব্য। যার পোশাকি নাম ‘ইয়াবা’।

ওই তিন ব্যক্তিকে সেকশন ২২(সি) এবং ২৯ মাদকজাত দ্রব্য রাখার অপরাধে তাঁদের গ্রেফতার করা হয়। আজই ওই তিন জনকে এনডিপিএস আদালতে হাজির করা হবে।

উল্লেখ্য, শনিবারই মালদহ ও বাংলাদেশ সীমান্তের ষাঁড়দহ মিস্ত্রিপাড়া গ্রাম থেকে উদ্ধার করা হয় বহু কাফ সিরাপের বোতল। পাশাপাশি সীমান্ত লাগোয়া এই গ্রামের দুটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ২০০০ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করেছিল পুলিশ। দুজনকে গ্রেফতারও করা হয়। শনিবারের এই ঘটনায় মালদহ জেলা পুলিশের দাবি, ওই কাফ সিরাপ সীমান্ত পার করিয়ে বাংলাদেশে পাচার করার চেষ্টা করছিল অভিযুক্তরা।

এর আগে সেপ্টেম্বর মাসে নারকেলডাঙ্গা থেকে এক ব্যক্তিকে মাদক সহ গ্রেফতার করেছিল কলকাতা পুলিশ। ধৃতের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছিল ৪০০ গ্রাম হিরোইন, যার আনুমানিক বাজার মূল্য ছিল প্রায় ৪৫ লক্ষ টাকা।

উল্লেখ্য, পুজোর মরসুমে প্রত্যেক বারেই শহরের বুকে বাড়ে মাদক পাচারকারীদের দৌরাত্ম্য। আর তা রোখাই পুলিশের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়ায়।