নয়াদিল্লি: চিন সীমান্তে পরিস্থিতি যে মোটেই খুব একটা সাধারণ নয়, তা মোটামুটিভাবে পরিস্কার। বিশেষত, মঙ্গলবার যেভাবে দফায় দফায় বৈঠক হয়েছে দিল্লিতে, তা রীতিমত উদ্বেগের।

এদিন বিকেলে বৈঠকে বসেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা আজিত দোভাল। কিন্তু তার আগে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকে বিশেষ বৈঠক হয়। সেখানে তিন বাহিনীর তরফ থেকে রিপোর্ট পেশ করা হয়। সেনাবাহিনীর তরফ থেকে সব ইনপুট দেওয়া হয় কেন্দ্রকে।

সূত্রের খবর, স্থলসেনা, নৌবাহিনী ও বায়ুসেনা একসঙ্গে ইনপুট তৈরি করেছে। এই পরিস্থিতিতে কীভাবে এই পরিস্থিতির মোকাবিলা করা হতে পারে সে ব্যাপারে আলোচনা করেছে তিন বাহিনীর অফিসারেরা। মঙ্গলবার সকালের সাউথ ব্লকের সেই বৈঠকে ছিলেন চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াত।

সেই বৈঠকের পর বিপিন রাওয়াত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে রিপোর্ট পেশ করেন। কী হতে পারে, না হতে পারে সেই বিষয়ে বিস্তীর্ণ রিপোর্ট দিয়েছে সেনাবাহিনী। কী ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে, সেরকম কিছু সাজেশনও দেওয়া হয়েছে সরকারকে।

গত কয়েকদিন ধরে লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের কাছে লাদাখে চোখে চোখ রেখে দাঁড়িয়ে আছে দুই দেশের সৈন্য। মূলত প্যাংগং তোসো লেক ও গালোয়ান ভ্যালির কাছে এই ঘটনা ঘটছে।

প্রাক্তন আর্মি কমান্ডার লেফট্যানেন্ট জেনারেল ডিএস হুদা বলেন, ‘এটা মোটেই স্বাভাবিক ঘটনা নয়। বিশেষ গালোয়ান ভ্যালিতে এভাবে চিনা সৈন্যের আনাগোনা বেশ উদ্বেগের বলে উল্লেখ করেছেন তিনি, কারণ ওই অঞ্চল নিয়ে দুই দেশের মধ্যে কোনও বিতর্ক নেই। অথচ সেখানেই সৈন্য মোতায়েন করেছে চিন।

কূটনীতি বিশেষজ্ঞ অশোক কে কন্ঠও একই কথা বলেন। তিনি বলেন, আগেও এভাবে চিনে সেনার এগিয়ে আসার ঘটনা ঘটেছে। তবে এবার বিষয়টা বেশ উদ্বেগের। এটা সাধারণ ঘটনা নয়। ২০১৭-তে ডোকলামে মুখোমুখি দাঁড়িয়েছিল দুই দেশের সেনা। এবারের সংঘাত তার থেকেও বড় হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন অনেকে।

শুধু তাঁবু খাটিয়ে বসে থাকাই নয়, রীতিমত লাঠি, পাথর এনে অপেশাদার সেনার পরিচব দিয়েছে চিন। ভারতীয় সেনাবাহিনীর দিকে কার্যত লাঠি নিয়ে এগিয়ে এসেছিল তারা। সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, এমনটাই জানা গিয়েছে।

সংবাদমাধ্য এএনআই-কে এক টি সূত্র জানাচ্ছে যে, পাকিস্তানে মদতে কাশ্মীরে যারা পাথর ছোঁড়ে, তাদের মতই ব্যবহার করেছে চিন। লাঠি, মুগুর, কাঁটাতার আর পাথর নিয়ে এসেছিল চিনা সেনা। ওই সূত্র আরও জানাচ্ছে যে সংঘাত চলাকালীন অকারণ ঔদ্ধত্য দেখাচ্ছে চিন। ভারতীয় সেনার সঙ্গে চরম অপেশাদারের মত ব্যবহার করেছে।

তবে ভারতের দিক থেকে এমন কোনও ব্যবহার করা হয়নি। চিনের সৈন্যকে সরিয়ে দেওয়ার মত ঘটনাও ঘটেনি। প্রায় ৫০০০ সেনা নিয়ে চিন এসেছিল বলে জানা গিয়েছে।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV