তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: রাজ্যের বিভিন্ন অংশ সহ ভিন রাজ্যের খোয়া যাওয়া ১৯ টি বাইক উদ্ধার করে বড়সড় সাফল্য পেল বাঁকুড়া জেলা পুলিশ। একই সঙ্গে এই ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে তিন জনকে গ্রেফতার করেছে কোতুলপুর থানার পুলিশ।

মঙ্গলবার কোতুলপুর থানায় এক সাংবাদিক সম্মেলন করে এই খবর জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গ্রামীণ) গণেশ বিশ্বাস। পুলিশ সূত্রে খবর, কোতুলপুর নাকা পয়েন্ট রামডিহাতে চেকিং এর সময় নম্বর প্লেট বিহীন বাইক চালক সানোয়ার মোল্লা নামে এক জনকে আটক করে।

বৈধ কাগজপত্র দেখাতে না পারায় ও কথার মধ্যে নানান অসংগতি থাকায় পুলিশ সানোয়ার মোল্লাকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন। পরে তার কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তির কোতুলপুর থানার ওসি মানস চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে আরও দু’জনকে গ্রেফতার ও ১৮ টি চোরাই বাইক উদ্ধার করা হয়।

এদিন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গ্রামীণ) গণেশ বিশ্বাস সাংবাদিকদের বলেন, উদ্ধার বাইক গুলির মধ্যে পাঁচটি পশ্চিম মেদিনীপুরের, তিনটি পশ্চিম বর্ধমানের, দু’টি বাঁকুড়ার, একটি করে আলিপুর ও অন্ধ্রপ্রদেশের।

বাকি সাতটি বাইকের আসল মালিকের এখনও খোঁজ মেলেনি। সন্ধান চলছে। উদ্ধার হওয়া বাইক গুলি খুব শীঘ্রই সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের হাতে তুলে দেওয়া হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.