শেখর দুবে, কলকাতা: সিবিআই তদন্তের জেরে এবারের পুজো অনেক নেতারই দেখা হবে না৷ এমনটাই মনে করছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ৷ সম্প্রতি আবার সিবিআইকে সারদা মামলার তদন্তে নড়চড়ে উঠতে দেখা গিয়েছে৷ এদিকে বৃহস্পতিবার সকালেই মুরলীধর সেন লেনে প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বাজপেয়ীর অস্থি-কলস নিয়ে বিজেপি পার্টি অফিসে জড়ো হয়েছেন রাজ্য বিজেপির শীর্ষনেতারা। অস্থি নিয়ে শোভাযাত্রা শুরুর আগে দিলীপ ঘোষের কাছে সারদা নিয়ে ফের সিবিআইয়ের সক্রিয়তা প্রসঙ্গে প্রশ্ন তোলায় তিনি বলেন, “সিবিআই তার কাজ করছে। দেখুন অনেক নেতা এবং অফিসাররা এবারের পুজো দেখার সুযোগ পাবেন না এটা জেনে রাখুন।”

 

২০১৩ সালে সারদা কেলেঙ্কারি সামনে আসে৷ তারই তদন্তের জেরে তৃণমূলের বেশ কয়েকজন নেতার হাজতবাসও হয়৷ তবে সিবিআই-এর এই তদন্ত মাঝে মাঝেই গতি হারিয়েছে ৷ যা নিয়ে সিপিএম কংগ্রেসের মত বিরোধী দলগুলি বিজেপি-তৃণমূল আঁতাতের কথা তুলেছে৷ সম্প্রতি রাজ্যের চার আইপিএস অফিসারকে জেরা করতে চেয়ে রাজ্য ডিজিকে চিঠি দিয়েছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাটি বলে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে খবর৷ এই চার আইপিএসের মধ্যে পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারেরও নাম রয়েছে৷ তবে তৃণমূল সূত্রে বলা হয়েছে এখানে জেরার কোনও ব্যাপার নেই এটি আসলে দুটি সংস্থার অফিসারদের আলোচনার জন্য ডাক পড়েছে৷

দিলীপ ঘোষের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের আগে কী সারদা মামলা গতি পাবে? প্রশ্নের উত্তরে বিজেপির রাজ্য সভাপতি বলেন, “দেখুন মানুষ সব দেখছে। কোনও ভাবে বাঁচতে পারবেন না সারদার অভিযুক্তরা।” তখন প্রশ্ন করা হয়, তাহলে কী ২০১৯-এর আগে আবারও ‘সারদা’কে হাতিয়ার করে মাঠে নামতে চলেছে বিজেপি? প্রশ্নের জবাবে দিলীপ ঘোষ বলেন, “দেখুন লোকসভা, বিধানসভা, পৌরসভা এবং পঞ্চায়েত নির্বাচন সঠিক সময়মতো হতেই থাকে, তার সঙ্গে সারদা মামলার বিশেষ সম্পর্ক নেই। সিবিআই তার কাজ করছে।’’

বিভিন্ন মহলের মত, রাজ্যে রাজ্যে অটলজির অস্থির শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে বিজেপি আসলে ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনের মহড়া শুরু করল।