কলকাতা: ঋতু পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে হাজির হয় নানাবিধ রোগ বালাই৷ তার উপর চোখ রাঙাচ্ছে করোনা৷ এই পরিস্থিতিতে সুস্থ থাকতে, শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে বেশ কিছু খাবারের জুড়ি মেলা ভার৷ দেখে নেওয়া যাক কী সেই খাবার-

রসুন- রসুনে রয়েছে একাধিক ঔষধি গুণ৷ ঠাণ্ডায় সর্দি-কাশির হাত থেকে বাঁচতে রসুনের চেয়ে ভালো আর কিই বা হতে পারে৷ এছাড়াও নিয়মিত রসুন খেলে রক্তচাপ ও উচ্চ কোলেস্টেরল স্তর নিয়ন্ত্রণে থাকে৷ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে৷ ফেরে মুখের স্বাদ৷ এছাড়াও এতে রয়েছে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট৷ যা শরীরের প্রাকৃতিক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়িয়ে তোলে৷

আদা- আরও একটি দুর্দান্ত খাদ্য হল আদা৷ শীককালে চায়ের সঙ্গে আদা আমরা অনেকেই খেয়ে থাকি৷ এছাড়াও নানা ধরনের পানীয় ও খাবারে আদার ব্যবহার করা হয়৷ আদা প্রকৃত পক্ষেই একটি সুপারফুড। এটা ইনফ্লেমেশন ও ব্যথা থেকে মুক্তি দেয়। বমি ভাব কমাতেও এটি অনবদ্য৷ বাড়ায় শরীরের রোগ প্রতিরোধ শক্তি৷

গোজি বেরি- এতে রয়েছে ভিটামিন সি, ভিটামিন বি, অপরিহার্য ফ্যাটি অ্যাসিড, অ্যামিনো অ্যাসিড, খনিজ ও ট্রেস এলিমেন্ট। প্রতিদিন সকালে গোজি বেরি খেলে রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

মাচা- মাচা এককথায় গুঁড়ো গ্রিন টি। আবার অনেকের কাছে কফির বিকল্প৷ এটে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন, মিনারেল, ট্রেস এলিমেন্ট, মুক্ত র্যা ডিকাল স্ক্যাভেঞ্জার্স৷ যা সর্দি, কাশিতে দারুণ কাজ করে৷ মাচা পানীয় হিসাবে খাওয়া যেতে পারে৷ আবার চাইলে মাচা ফ্লেভারের কেক বা কুকিজও বানানো যেতে পারে।

ব্লুবেরি- এটা যেমন থেকে ভালো, তেমনই গুণেও ভরপুর৷ ব্লুবেরিতে রয়েছে ভিটামিন সি ও পটাশিয়াম৷ যা শরীরের পক্ষে অত্যন্ত উপযোগী। এবং শীতকালে ব্লুবেরি খাওয়া উচিত। ব্লুবেরি অ্যান্টি ইনফ্লেমেটারি, যা নানান রোগের হাত থেকে আমাদের রক্ষা করে লাল শিমলা

লঙ্কা- এতে রয়েছে ভরপুর ভিটামিন সি৷ যে কোনও টক ফলের তুলনায় যা প্রায় দ্বিগুণ৷ মৌরী- খাবার পর মৌরী মুখে দিতে অনেকেই ভালোবাসেন৷ কিন্তু অনেকেই জানেন না মৌরীতে রয়েছে প্রায় ২০ শতাংশ ভিটামিন সি৷ নিয়মিত মৌরী খেলে শরীরে ব্যাক্টিরিয়া ও ভাইরাস ধ্বংসকারী শ্বেত রক্ত কণিকা উৎপন্ন হয়। তাই শরীরকে রোগমুক্ত রাখতে মৌরী খুবই উপকারী৷

দই- শরীরে রোগ প্রতিরোধে দইয়ের জুড়ি মেলা ভার৷ এর প্রোবায়োটিক উপাদান শরীরকে দূষিত হতে দেয় না৷ সংক্রমণ থেকে দ্রুত সেড়ে উঠতে সাহায্য করে। দইয়ের প্রোবায়োটিক আসলে ভালো ব্যক্টিরিয়া, যা পাচনতন্ত্রের কাজ সুষ্ঠু ভাবে পরিচালনা করতে সাহায্য করে।

গ্রিন টি- ওজন কমানোর জন্য ডায়েট করলেই সকলে গ্রিন টি-র কথা বলে৷ কিন্তু এতে উপস্থিত অ্যান্টি অক্সিডেন্ট শরীর সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

ন্যাশনাল সেন্টার ফর বায়োটেকনোলজি ইনফরমেশানের মতে, গ্রিন টি অক্সিডেন্ট ও র্যা ডিকাল থেকেও আমাদের রক্ষা করে। হলুদ- যে কোনও ধরণের সংক্রমণের সঙ্গে আমাদের রক্ষা করতে পারে হলুদ৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।