স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রাজ্য বিজেপি নেতা এবং রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক(সংগঠন) সুব্রত চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র একটি ছবি প্রকাশ্যে এসেছে৷ এই ছবির প্রকাশ্যে আসার পর জল্পনা শুরু হয়েছে সুব্রতবাবু যিনি রাজ্য বিজেপির অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একজন সদস্য , কি কারণে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির সঙ্গে দেখা করতে গেলেন৷ জল্পনার জল এতোটাই গড়িয়েছে যে অনেকেই সন্দেহ প্রকাশ করছেন, সুব্রতবাবু কি তবে দল পরিবর্তন করবেন৷

এই সন্দেহের কারণ স্বরূপ বিভিন্ন মহলের ব্যাখ্যা, গত সোমবারই রাজ্য বিজেপির প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক(সংগঠন) অমলেন্দু চট্টোপাধ্যায়ের মতো হেভিওয়েট নেতা প্রদেশ কংগ্রেসে যোগদান করেছেন৷ অমলেন্দু বাবু প্রদেশ কংগ্রেসে যোগদান করার কোনও আগাম খবরই বিজেপির কাছে ছিল না৷

সেদিক থেকে বলতে গেলে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব অমলেন্দু বাবুর দল পরিবর্তনে কছুটা অবাকই হয়েছেন৷ শোনা যায়, অমলেন্দু বাবুর বিরুদ্ধে এক মহিলা পুলিশের কাছে কিছু অভিযোগের ভিত্তিতে তিনি বিতর্কে ছিলেন৷ তারপর থেকেই নাকি অমলেন্দুবাবুর সঙ্গে দলের দূরত্ব বাড়ছিল৷ কিন্তু এক্ষেত্রে সুব্রতবাবুর সঙ্গে সোমেন মিত্র সাক্ষাতের কি কারণ বা এটি কোনও গোপন সাক্ষাৎ কিনা তা অনেকেই বুঝে উঠতে পারছেন না৷

সুব্রত চট্টোপাধ্যায় ঘনিষ্ট এক ব্যক্তি জানান, সুব্রতবাবু বিজেপির একটি কার্যক্রম, ‘সম্পর্ক ফর সমর্থন’র জন্য সোমেন মিত্র বাড়িতে গিয়েছিলেন এবং গত চার বছরে মোদী সরকার যে কাজ করেছে সেই সম্পর্কিত একটি বই সোমেন বাবুকে পড়তে দিয়ে আসেন, সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে এবং অনেকেই না জেনে বিভিন্ন ধরণের কথা বলছে৷

সুব্রতবাবু ঘনিষ্টমহলের থেকে এও স্পষ্ট জানানো হয়েছে সোমেন বাবুর সঙ্গে সাক্ষা৴ৎ নিতান্তই রাজনৈতিক সৌজন্য৷ বেশ কয়েকদিন আগে সোমেনবাবুর সঙ্গে তার সাক্ষাৎ হয়৷ অসুস্থ সোমেন মিত্র শারীরিক অবস্থা কেমন তা তিনি জানতে চেয়েছিলেন৷ তবে লোকসভা নির্বাচনের আগে দলবদলের গুরুত্বপূর্ণ বাজারে সোমেন মিত্রর সঙ্গে সুব্রত চট্টোপাধ্যায়ের যে ছবি প্রকাশ্যে এসেছে তা রাজনৈতিক জল্পনার মাত্রাকে বহুদূরে প্রসারিত করেছে৷