ব্যাংকক: দিব্বি সব চলছিল। করোনার হামলা সামলে খানিকটা স্বস্তিতে এসেছিল থাই জনজীবন। সব গেল ভেস্তে। মিশরের সেনা কর্তারা যাত্রা বিরতিতে মজায় ঘুরে বিপদ বাড়িয়ে দিলেন। বিবিসি জানাচ্ছে, মিশরীয় সেনা কর্তারা থাই সরকারের নির্দেশ উপেক্ষা করে ঘোরাঘুরি করেন।

সেই কারণে ১৯০০ জনকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে। নতুন করে করোনা সংক্রমণের চিন্তা বাড়ছে। কারণ ওই মিশরীয়দের একজন করোনা আক্রান্ত। এর জেরে ক্ষুব্ধ থাই সরকার প্রাথমিকভাবে সব আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বাতিল করেছে।

থাই কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মিশরের ৩১ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল দু দিনের যাত্রাবিরতির সময় রেয়ং প্রদেশের একটি দোকানে গিয়েছিলেন। ওই সেন্টারে যারা ছিলেন এরকম প্রায় ১৯০০ লোককে কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পুরো ঘটনায় মিশরীয় দূতাবাসকে দায়ী করা হচ্ছে।

অভিযোগ, দূতাবাস মিশরীয় সেনা কর্তাদের হোটেলে পাঠানোর ব্যবস্থা করায় সংক্রমণ ঝুঁকি আরও বাড়ি। এদিকে মিশরীয় সেনা কর্তাদের আচরণে ছড়িয়েছে ক্ষোভ।

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা এই খবর দিতেই থাইল্যান্ডের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ ছড়াতে শুরু করেছে। এর আগে কড়া ভূমিকা নিয়ে থাই সরকার করোনা মোকাবিলা করে। ওয়ার্ল্ডোমিটার জানাচ্ছে, থাইল্যান্ডে করোনায় ৩২০০ জনের বেশি আক্রান্ত হন। মৃত্যু হয় ৫৮ জনের।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ