কলকাতা: তৃণমূল নেত্রী মঙ্গলবার ২১ শের সভা থেকে বলেন, তৃণমূল থাকলে সারাজীবন বিনামূল্যে রেশন দেওয়া হবে৷ এই প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা বলেন ওঁরা ক্ষমতায়ই থাকবে না৷

বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা সংবাদমাধ্যমকে জানান, ৯ বছর ধরে যে সরকারটা কিছু করতে পারলো না৷ এখন ফ্রি তে রেশন দেবেন৷ সেটাও বলেছেন, যদি আমরা ক্ষমতায় থাকি৷ ওঁরা ক্ষমতায়ই থাকবেই না৷ সেই কারণে যদি নদীতেই চলে যাবে৷

২১-শের ভার্চুয়াল সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করলেন,আমাদের সরকার ক্ষমতায় থাকলে সারাজীবন রেশন ফ্রি-তে পাবেন৷ কিছুদিন আগেই মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আগামী বছরের জুন মাস পর্যন্ত ফ্রি-তে রেশন দেওয়া হবে। এবার ফের এই ঘোষণা করলেন মমতা।

এদিন মমতা বলেন, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে সবার আগে বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে পশ্চিমবঙ্গ। তার পর আগামী ২১ মে পর্যন্ত বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। কিন্তু আমরা আগামী বছর ফিরে এলে সারা জীবন ফ্রিতে পশ্চিমবঙ্গবাসী রেশন পাবেন। রেশন ও স্বাস্থ্য বিনামূল্যে পাবে রাজ্যবাসী।

তিনি আরও বলেন, আমি অন্য জায়গা থেকে উপার্জন করব। আর সেই আয় ভাগ করে দেব গরিব মানুষের মধ্যে। এটাই পশ্চিমবঙ্গ সরকারের নীতি-আদর্শ। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন রাজ্যের ৬ কোটি মানুষকে রেশন দিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। পশ্চিমবঙ্গ সরকার আরও খরচ করে ৮ কোটি মানুষকে বিনামূল্যে রেশন দিচ্ছে। মমতা এদিন জানান, ক্ষমতায় ফিরলে আজীবন বিনামূল্যে রেশন পাবেন পশ্চিমবঙ্গবাসী।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.