ফাইল ছবি৷

ইন্দোর: তিনি ইন্দিরার নাতনি৷ গান্ধী পরিবারের মেয়ে৷ প্রতিকূল পরিস্থিতিকে কীভাবে অনুকূল বানিয়ে বিপক্ষকে চাপে ফেলে দেওয়া যায় সেই রণনীতি তাঁর ভালোই জানা৷ তাই একদল বিজেপি কর্মী যখন প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে অস্বস্তিতে ফেলতে গিয়ে নিজেরাই বেকায়দায় পড়ে যায়৷

আরও পড়ুন: ২৩ মে’র পর বিজেপি থেকে বিধায়করা যোগ দেবেন কংগ্রেসে

ভোটপ্রচারে মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে যান রাজীব তনয়া৷ এয়ারপোর্ট থেকে কালো রঙের টাটা সাফারির এসইউভি গাড়িতে বের হন তিনি৷ পরনে ছিল মেরুন রঙের শাড়ি৷ কপালে চন্দনের তিলক৷ এয়ারপোর্ট থেকে বেরনোর পর একদল বিজেপি সমর্থক ব্যস্ত রাস্তায় তাঁর গাড়ি থামায়৷ তাদের মধ্যে কয়েকজন বিজেপি কর্মী ‘মোদী মোদী’ বলে চিৎকার করতে শুরু করে৷

এরপরই শুরু চমকের৷ গাড়ি থেকে বেরিয়ে আসেন প্রিয়াঙ্কা৷ বিজেপি কর্মীদের দিকে এগিয়ে যান৷ পিছনে নিরাপত্তা কর্মীরা৷ প্রিয়াঙ্কার মুখে সেই স্নিগ্ধ হাসি৷ বিজেপি কর্মীদের দিকে এগিয়ে সবাইকে চমকে তাদের সঙ্গে হাত মেলান রাজীব তনয়া৷ বলে ওঠেন, ‘‘আপনারা আপনাদের জায়গায় ঠিক৷ আমি আমার জায়গা৷ অল দ্য বেস্ট৷’’

আরও পড়ুন: সত্যিই ভূস্বর্গ, প্রতিবন্ধী শিশুকে খাইয়ে দিলেন পুলিশ কর্মী

তরুণ বিজেপি কর্মীরা তখন একে অপরের মুখ চাওয়া চাওয়ি করছিল৷ ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে যান সকলে৷ বুঝে উঠতে পারছিলেন না ঠিক কী ঠিক হবে৷ পরিস্থিতি সামাল দিতে তাদের মধ্যে একজন প্রিয়াঙ্কার একটি ছবি তোলেন৷ তারপরেই ইন্দোরের রোড শো’তে ঝড় তোলেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক৷ দু’পাশে ছিলেন উৎসাহী জনতার ভিড়৷ প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে ছিলেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ ও ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেল৷ শেষ দফায় অর্থাৎ ১৯মে মধ্যপ্রদেশের আটটি আসনে ভোটগ্রহণ হবে৷