কলকাতা : দুর্গাপুজো ২০২০ উদযাপন করতে জি ফাইভ লঞ্চ করল নয়া ডিজিটাল ক্যাম্পেন মায়ের সাথে মা’কে দেখা। এই ক্যাম্পেন মা দুর্গার পাশাপাশি এ বছরের দুর্গাপুজোয় নিজের মাকেও শ্রদ্ধা নিবেদন করতে দর্শকদের উৎসাহ দিচ্ছে বাংলা বিনোদন শিল্পের ৫ জন বিখ্যাত শিল্পী দিতিপ্রিয়া রায়, ঋদ্ধি সেন, শ্বেতা ভট্টাচার্য, সৌরসেনী মৈত্র আর নীল ভট্টাচার্যকে এই প্রথম একত্র করল তাঁদের মায়েদের সঙ্গে।

এই ক্যাম্পেনের উদ্দেশ্য মা দুর্গার পাশাপাশি নিজের মাকেও শ্রদ্ধা নিবেদন করে এই পুজো উদযাপন করতে দর্শকদের উৎসাহ দেওয়া। জি ফাইভ প্ল্যাটফর্ম বাংলার বিনোদন শিল্পের ৫ জন বিখ্যাত শিল্পীকে ৫টা মন ভরানো ভিডিওর মাধ্যমে নিয়ে এসেছে দর্শকদের সামনে। ভিডিওগুলোতে তাঁরা ছোটবেলার পুজোর স্মৃতিচারণ করছেন, করতে করতে বুঝতে পারছেন কিভাবে চারপাশের আনন্দ ফুর্তি থেকে মায়েরা বঞ্চিত হতেন। এই ক্যাম্পেন সকলের কাছে আবেদন করছে, যেন আমাদের মায়েদের আরো বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়, তাঁদের অবদান আরো বেশি করে স্বীকার করা হয়।

২৬ অক্টোবর পর্যন্ত এই উদ্যোগের অঙ্গ হিসাবে কলকাতার সবকটা সেরা পুজো প্যান্ডেল থেকে পুজোর লাইভ স্ট্রিমিংও চলবে। দেশের কোন ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে পুজোর লাইভ স্ট্রিমিং এই প্রথম। ক্যাম্পেন লঞ্চ করা উপলক্ষে জি ফাইভ ইন্ডিয়ার হেড ব্র্যান্ড মার্কেটিং অ্যান্ড সাপ্লাই অভি কুমার, বলেন, ‘দুর্গাপুজো নিঃসন্দেহে ভারতের সেরা উৎসবগুলোর একটা। গ্রাহকদের থেকে পাওয়া জোরালো মতামতের বলে বলীয়ান মায়ের সাথে মা’কে দেখা। গ্রাহকদের মন ছুঁয়ে যাবে। জি ফাইভ গ্রাহকদের বাস্তবসম্মত, মনে রাখার মত এবং প্রাসঙ্গিক কনটেন্ট দেওয়ার প্রতিশ্রুতি অনবরত পালন করে চলেছে। আশা করি এই উদ্যোগ এবারের পুজোটাকে সকলের জন্য আরো বেশি স্মরণীয় করে রাখতে সাহায্য করবে।”

পাঁচ বিখ্যাত শিল্পীর মধ্যে দিতিপ্রিয়া রায় জনপ্রিয় অনুষ্ঠান করুণাময়ী রানি রাসমণির নাম ভূমিকায় অভিনয় করেন, ঋদ্ধি সেন নগরকীর্তন ছবির জন্য ২০১৮ সালে সেরা অভিনেতার জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন। তিনি কাজল অভিনীত হেলিকপ্টার ইলা ছবিতেও প্রধান চরিত্রে আছেন এবং এই ভিডিওতে তাঁর মা অভিনেত্রী রেশমি সেনের সঙ্গে রয়েছেন। যমুনা ঢাকী সিরিয়ালের প্রধান চরিত্রে অভিনয় করা শ্বেতা ভট্টাচার্য রয়েছেন, আছেন মাছ মিষ্টি অ্যান্ড মোর এবং জি ফাইভ এর শো লালবাজার ও ওয়াত-এ-বিরিয়ানিতে অভিনয়ের জন্য খ্যাত সৌরসেনী মৈত্র। আর রয়েছেন নীল ভট্টাচার্য, যিনি জনপ্রিয় অনুষ্ঠান কৃষ্ণকলিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.