নারীর সৌন্দ্যর্যে চুলের ভূমিকা অপরিসীম। বিয়েবাড়ি হোক বা অন্য কোনও অনুষ্ঠান বাড়ি বহিরঙ্গের সাজের পাশাপাশি এক মাথা কালো ঝলমলে চুলের সাজ বরাবরই সবার নজর কাড়তে বাধ্য। আর এই একমাথা কালো ঘন চুলের স্বপ্ন কমবেশি প্রায় প্রত্যেক মহিলারদেরই থাকে। কিন্তু দৈনন্দিন কর্মব্যস্ততার যুগে এক মাথা চুল রাখা এবং তার সঠিক পরিচর্যা করা বেশ দুস্কর বটে। তবে চুল ছোট হোক বা বড় সময় করে চুলের যত্ন নিতে সব নারীই পছন্দ করে। আর আপনিও যদি অন্যদের মতই নিজের চুলের প্রতি একটু বেশি কেয়ারিং এবং যত্নশীল হন তাহলে অবশ্যই আমাদের এই প্রতিবেদনটি পড়ুন।

সকালবেলা ঘুম থেকে উঠলেই গায়ে লাগছে হিমের পরশ। আর এই হিমের পরশ মানেই শীতের আগমনীর বার্তা। শীত মানে যেমন, পিঠেপুলি, নলেনগুড়, খেজুরের রস খাওয়ার সময়। তেমনই আবার শীত মানেই বিয়ের মরশুম। আর উৎসবের মরশুম মানেই প্রিয়জনের বিয়ে উপলক্ষ্যে সাজগোজ, হইহুল্লোড় আর হাসি আড্ডা। আর এই হইহুল্লোড়ের মরশুমে সবাই চাই নিজেকে সুন্দর করে সাজিয়ে মেলে ধরতে সকলের সামনে। কিন্তু অফিস বা বাড়িতে কাজের চাপে অনেকেরই পার্লারে গিয়ে সময় নিয়ে ত্বক-চুলের যত্ন নেওয়া হয়ে উঠে না। তাহলে কী তাঁরা বাদ পড়বেন উৎসবের আনন্দে নিজেকে সুন্দর করে সাজিয়ে তোলা থেকে?

তাহলে আজকের উত্তরটা হবে একদমই না। পার্লারে নাই বা যেতে পারলেন তাতে কি হয়েছে। হাতের কাছে এই ঘরোয়া কিছু উপকরণ থাকলে বাড়িতে বসেই করে ফেলুন রুপচর্চা। মনের মত করে নিন আপনার চুলের যত্ন। আর সকলের সামনে নিজেকে তুলে ধরুন আরও মোহময়ী করে। বিয়ের মরশুমে নিজের চুলের যত্ন নিতে বাড়িতে বসেই ঘরোয়া পদ্ধতিতে বানিয়ে ফেলুন এই হেয়ার মাস্কগুলি

১ অ্যালোভেরা এবং নারকেল তেল:– প্রাকৃতিক উপায়ে চুলের যত্ন নিতে এই দুইয়ের ভূমিকা অনবদ্য। বাড়িতে বসেই অ্যালোভেরা এবং নারকেল তেল দিয়ে বানিয়ে ফেলুন চটপট এই হেয়ার মাস্ক। একটা বাটিতে পরিমান মত নারকেল তেল নিন। তাতে কিছুটা অ্যালোভেরা জেল মেশান। এরপর উপকরন দুটি খুব ভালো করে মিশিয়ে পেস্টের মত তৈরি করুন। এবং ওই মিশ্রন থেকে এবার কিছুটা পেস্ট ভালোকরে মাথায় মেখে শুয়ে পড়ুন। ভালো উপকার পেতে মাস্কটি অবশ্যই রাতের বেলা ব্যবহার করবেন। এবং পরদিন সকালে উঠে ঠাণ্ডা জল দিয়ে ভালো করে মাথা ধুয়ে ফেলুন। অকালে চুল ঝরে যাওয়ার সমস্যা থেকে রেহাই পেতে কার্যকরী উপাদান এটি।

২ কারিপাতা, মেথি এবং আমলা সহযোগে হেয়ার মাস্ক:– চুলের পুষ্টিতে কারিপাতার অবদান অনেক। এর পুষ্টিগুণ চুল পড়া থেকে যেমন রক্ষা করে তেমনই নতুন চুল গজাতেও সাহায্য করে। অন্যদিকে চুলের পুষ্টিতে আমলা এবং মেথির ভূমিকাও সমান বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। কারিপাতা, মেথি এবং আমলা দিয়ে হেয়ার মাস্ক বানাতে চাইলে প্রথমেই কারিপাতা, মেথি এবং আমলা দিয়ে ভালো করে একটি মিশ্রন তৈরি করুন। তারপরে ওই পেস্টটি আপনার চুলের গোড়া থেকে একেবারে শেষ পর্যন্ত ভালো করে ম্যাসাজ করুন। মিশ্রনটি মাথায় দিয়ে ঘণ্টাখানেক রেখে দিন। তারপরে শ্যাম্পু দিয়ে ভালো করে চুল ধুয়ে ফেলুন।

৩ ভিটামিন ই(E)হেয়ার মাস্ক:- ভিটামিন ‘ই’ সমৃদ্ধ হেয়ার মাস্ক আপনার চুলের জন্য দারুন উপকারী। এই মাস্কটি যেমন আপনার চুল পড়া বন্ধ করে তেমনই হেয়ার ন্যারিশমেণ্ট করে। চুলকে গোড়া থেকে মজবুত রাখে। ভিটামিন ই(E) সমৃদ্ধ হেয়ার মাস্ক বাড়ি বসে বানাতে প্রথমে আপনার যেটি দরকার হবে সেটি হল প্রথমেই আপনাকে দুটি ভিটামিন ‘ই’ ক্যাপসুল নিতে হবে

এবং সেটির সঙ্গে অ্যালোভেরা জেল মেশাতে হবে। এছাড়াও অল্প কিছু অ্যালমণ্ড অয়েল ও মিশিয়ে নিতে পারেন। এরপর এই তিনটি উপাদান ভালো করে মিশিয়ে নিন। তারপর চুলের গোড়া থেকে শেষপ্রান্ত পর্যন্ত ভালো করে ম্যাসাজ করে নিন এবং ত্রিশ চল্লিশ মিনিট রেখে দিয়ে ঠাণ্ডা জল ও শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।