বোলপুর: ঐতিহ্যবাহী বসন্ত উৎসব এবার অনুষ্ঠিত হবে না শান্তিনিকেতনে। এমনটাই জানিয়েছে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ। বিশ্বভারতীর এমন সিদ্ধান্তে হতাশ বহু মানুষ। দোলের ২০ দিন আগেই এবার বিশ্বভারতীতে অনুষ্ঠিত হবে বসন্ত উৎসব। ১০ মার্চ দোল হলেও শান্তিনিকেতনে বসন্ত বন্দনা হবে ১৮ ফেব্রুয়ারি।

প্রতি বছর বসন্ত উৎসব উপলক্ষে মানুষের ঢল উপচে পড়ে শান্তিনিকেতনে। গত বছর কয়েক জন অসুস্থ হয়ে পড়েছিল। সূত্রের খবর, ভিড়ের চাপ সামলাতে না পরেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্বভারতী। পৌষমেলা ও বসন্ত উৎসবকে কেন্দ্র করে শান্তিনিকেতনের মানুষের নানা অভিযোগ রয়েছে বহুদিন ধরেই। অভিযোগের কারণ, এই দুই উৎসবকে কেন্দ্র করে শান্তিনিকেতনের পরিবেশ নষ্ট হয়। জানা গিয়েছে, গত বছর বসন্ত উৎসবের সময় ভিড়ের চাপে আটকে পড়েছিল অ্যাম্বুলেন্স।

বিশ্বভারতীর সিদ্ধান্তে ইতিমধ্যেই অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। জানা গিয়েছে, এই বিষয়ে বিশ্বভারতীর উপাচার্যের সঙ্গে কথা বলবেন পার্থ বাবু। ঐতিহ্যবাহী বসন্ত উৎসব অনুষ্ঠিত করার জন্য সব রকম সাহযোগিতা করবে রাজ্য সরকার– একথাও জানান শিক্ষামন্ত্রী।

প্রতি বছর বসন্ত উৎসব উপলক্ষে শান্তিনিকেতনে যাওয়ার জন্য অপেক্ষা করে থাকে বহু মানুষ। নানা রকম অনুষ্ঠান হয় উৎসবকে ঘিরে। শিল্পী সাহিত্যিকদের প্রবল আগ্রহ থাকে উৎসবকে ঘিরে। আবিরের মধ্যে দিয়ে রাঙিয়ে দেয় একে অপরের অন্তর। এবার শান্তিনিকেতনে নির্ধারিত সময়ের আগেই বসন্ত উৎসবের বিষয়টি ভাল ভাবে দেখছে না বহু মানুষ।