নয়াদিল্লি: তেমন কোনও গোলমাল ছাড়াই ইদ কেটে গিয়েছে । অবশ্য স্বাধীনতা দিবস এখনও বাকি ৷ সেটা ভালয়-ভালয় কাটলে কাশ্মীরে জেলাভিত্তিক কার্ফু প্রত্যাহার করার পরিকল্পনা রয়েছে কেন্দ্র। তখন মোবাইল ও ইন্টারনেট পরিষেবা ধাপে ধাপে ফেরানো হবে । ইতিমধ্যে কার্ফু প্রত্যাহারের দাবিতে মামলা হয়েছে সুপ্রিম কোর্টে ৷ যদিও এখনই সরকারের উপর কোনও আদেশ জারি করতে রাজি হয়নি বিচারপতি অরুণ মিশ্রের তিন সদস্যের বেঞ্চ। দু’সপ্তাহ পরে ওই মামলার ফের শুনানি রয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সূত্রে জানা গিয়েছে, এ মাসের মধ্যেই উপত্যকায় স্বাভাবিক পরিস্থিতি ফেরাতে চাইছে সরকার। কারণ ইতিমধ্যেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে ১২-১৪ অক্টোবর কাশ্মীরে প্রথম আন্তর্জাতিক বিনিয়োগ সম্মেলন করার। ফলে দ্রুত কার্ফু তুলে উপত্যকায় স্বাভাবিক অবস্থা আনতে চাইছে কেন্দ্র৷

এদিকে শ্রীনগর প্রশাসন জানিয়েছে, সেখানে বিভিন্ন প্রান্তে স্বাধীনতা দিবস উৎযাপনের প্রস্তুতি চলছে। ১৫ অগস্ট শ্রীনগরের লালচকে অমিত শাহ পতাকা তুলবেন বলে নানা মহলে শোনা গেলেও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত তেমন কোনও পরিকল্পনা নেই। পরিস্থিতি বুঝতে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল এদিনও পথে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।