স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: এই দাবদাহ গরমে গত তিন দিন ধরে উত্তর ২৪ পরগনার বরানগর পৌরসভার ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের টবিন রোড সংলগ্ন এলাকায় কারেন্ট নেই৷ সিএসসি-র কেবল ফল্টের কারনেই এই বিদ‍্যুৎ বিপর্যয় বলে জানিয়েছেন সিইএসসি কর্মীরা। ১৪ জুন রাত থেকে তীব্র গরমে দিন কাটছে বরানগর পুরসভার ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের মোট ১০৩ টি পরিবার।

এই প্রসঙ্গে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, সিইএসসি কর্মীরা কেবল ফল্ট মেরামতি করতে এলেও তা তারা সারিয়ে তুলতে পারে না। বরানগরের ৭৯/১ বিটি রোড এলাকাতে যে ১০৩ টি পরিবার অন্ধকারে দিন কাটাচ্ছেন, সেই অঞ্চলে সিইএসসির লাইন গিয়েছে মাটির তলা দিয়ে। সেখানেই মূলত কেবল ফল্ট হয়েছে।

আরও পড়ুন: ফাদার্স ডেতে সোশ্যাল সাইটে বলি-তারকাদের পোস্ট

পাশাপাশি এলাকাবাসীরা জানান, সিইএসসি কর্মীরা ওই কেবল ফল্ট সারাই করে দেবার সঙ্গে সঙ্গেই আবার চলে যাচ্ছে বিদ্যুৎ পরিষেবা। রবিবার তীব্র গরমের কারণে ক্ষিপ্ত হয়ে এলাকাবাসীরা রাস্তায় নেমে নিজেদের ক্ষোভ প্রকাশ করেন। বরানগর থানার পুলিশ ও স্থানীয় কাউন্সিলর শম্পা চন্দ ঘটনাস্থলে এসে বিষয়টি নিয়ে সিএসসির ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে৷ তাঁরা সোমবারের মধ্যে সম্পূর্ন ভাবে বিদ্যুৎ পরিষেবা ঠিকঠাক করে দেওয়ার আশ্বাস দিলে শান্ত হন স্থানীয়রা।

অভিযোগ, গত দু’দিনের প্রচন্ড গরমে এই অঞ্চলে বেশ কয়েকজন মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়েন৷ স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন, ‘‘একটা সময় এই এলাকায় বসতির সংখ্যা কম ছিল৷ সেই সময় এলাকায় আবাসন গড়ে ওঠেনি। কিন্তু এখন এখানে জনসংখ্যা বেড়েছে। প্রচুর আবাসন হয়েছে৷ মানুষের ঘরে ঘরে এসি মেশিন বসেছে।

আরও পড়ুন: “বাবা, তুমিই আমার জীবনের সবথেকে হ্যান্ডসাম পুরুষ”

এসি মেশিন বসানোর জন্য সিইএসসি ডিপোজিট মানিও নিচ্ছে। কিন্তু মেন লাইনের মাটির তলার পুরনো কেবল সিইএসসি এখনও পরিবর্তন করেনি৷ ফলে নতুন করে পুরনো ওই কেবল সারাই করে আর চলবে না। নতুন কেবল তার পরিবর্তন করে লাগাতে হবে। ওরা এখনও কোনও ইঞ্জিনিয়র এলাকায় পাঠায়নি। কাউন্সিলর আশ্বাস দিয়েছে আগামীকাল সব ঠিক হয়ে যাবে। এখন দেখা যাক কি হয়।’’

এদিকে গত কয়েকদিনে দিনের তাপমাত্রা প্রায় ৪০ ছুঁইছুঁই৷ সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে কারেন্ট ছাড়া একেবারে নাজেহাল অবস্থা এলাকাবাসীদের৷ বড়রা এই গরম সহ্য করে নিলেও বাড়ির ছোট সদস্য এবং বয়স্কদের অবস্থা একেবারেই শোচনীয়৷ তূব্র গরমে প্রাণ ওষ্ঠাগত হয়ে উঠেছে তাদের৷ এখন দেখার বিষয় কত দ্রুত এই সমস্যার থেকে রেহাই মেলে স্থানীয় বাসিন্দাদের৷

আরও পড়ুন: বানচাল বড়সড় নাশকতা ছক! পুলিশের জালে ২৭ জঙ্গি