ফাইল ছবি

কলকাতা: রাজ্যে চতুর্থ দফার নির্বাচনে সব মিলিয়ে ৬৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন৷ ওই ৬৮ জন প্রার্থীর মধ্যে ১৪ জনের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা রয়েছে৷

অর্থাৎ তারা ফৌজদারি অভিযোগে অভিযুক্ত৷ ওই ১৪ জনের মধ্যে আবার ১২ জন এমন রয়েছেন যাদের বিরুদ্ধে গুরুতর ফৌজদারি অভিযোগ যেমন, পাঁচ বছরেরও বেশি জেল হতে পারে এমন অভিযোগ বা জামিন অযোগ্য ধারা, নির্বাচন সংক্রান্ত অভিযোগ, চুরি, খুন, জখম, অপহরণ দূর্নীতি বা মহিলাদের বিরুদ্ধে সংগঠিত অপরাধের অভিযোগ রয়েছে৷ এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য জানিয়েছে ওয়েস্ট বেঙ্গল ইলেকশন ওয়াচ এবং অ্যাসোসিয়েশন অব ডেমোক্রেটিক রিফর্মস৷

ওই দুই সংস্থার দাবি, তারা যে তথ্য হাজির করেছে, তা প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় হলফনামায় তারা নিজেরাই জানিয়েছে৷ নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইট থেকে ওই প্রার্থীদের হলফনামা পাওয়া গিয়েছে৷

‘ওয়েস্ট বেঙ্গল ইলেকশন ওয়াচে’র পক্ষে রাজ্য কো-ওরডিনেটর উজ্জ্বয়নী হালিম বলেন, বহরমপুর ১১ জন, কৃষ্ণনগরে ১১ জন, রাণাঘাটে ৭জন, বর্ধমান পূর্বে ৭ জন, বর্ধমান-দূর্গাপুরে ৬ জন, আসানসোলে ১০ জন, বোলপুরে ৭ জন এবম বীরভূমে ৯ জন প্রার্থী রয়েছেন৷

বিজেপির এমন চার জন প্রার্থী রয়েছেন যারা ফৌজদারি অপরাধে অভিযুক্ত৷ ওই চারজনের মধ্যে তিনজন গুরুতর অপরাধে অপরাধী৷ কংগ্রেসের এক প্রার্থীর বিরুদ্ধেও গুরুতর অপরাধের অভিযোগ রয়েছে৷ তৃণমূল কংগ্রেসের এমন একজনই প্রার্থী রয়েছেন যার বিরুদ্ধে গুরুতর ফৌজদারি অভিযোগ রয়েছে৷ উল্লেখযোগ্য সিপিএমের সাত জন প্রার্থীর মধ্যে ৬জনের বিরুদ্ধেই ফৌজদারি অভিযোগ রয়েছে৷ ওই ৬জনের মধ্যে ৫জনের বিরুদ্ধে গুরুতর ফৌজদারি অপরাধ রয়েছে৷

প্রসঙ্গত উল্লেখযোগ্য নির্বাচন কমিশন নির্দেশ দিয়েছে, ফৌজদারি অভিযোগে অভিযুক্ত প্রত্যেক প্রার্থীকে খবরের কাগজ এবং টেলিভিশনে বিজ্ঞাপন দিয়ে নিজেদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি অভিযোগের কতা জানাতে হবে৷ এটা বাধ্যতামূলক৷ উজ্জ্বয়নীর মতে, রাজ্যের রাজনৈতিক দলগুলির ফৌজদারি অভিযোগে অভিযুক্ত প্রার্থীরা কিছু অনামী খবরের কাগজ এবং টেলিভিশনে বিজ্ঞাপন দিয়েছেন৷ তা নিয়ে নির্বাচন কমিশনকে ওয়েস্ট বেঙ্গল ইলেকশন ওয়াচ জানিয়েছে৷ তা নিয়ে বেশ চিন্তিত নির্বাচন কমিশনও৷