স্টাফ রিপোর্টার, মেদিনীপুর: আনন্দের ভ্রমণ যে এভাবে বিষাদে পরিণত হবে তা হয়তো কল্পনাতেও ভাবেননি বাকি বন্ধুরা৷ নিজেদের কর্মজীবন থেকে একটু বিরতি নিয়ে ঘুরতে গিয়েছিলেন চার বন্ধু৷ কিন্তু সেখানেই চিরবিদায় জানাতে হল আরেক বন্ধুকে৷ মৃতের নাম সায়ন্তন বর্মা (৩০)৷ হুগলির হরিপালের বাসিন্দা৷

পুলিশ সূত্রে খবর, মেদিনীপুরের গনগনিতে বেড়াতে গিয়েছিলেন চার বন্ধু৷ সেখানে পৌঁছে প্রথমেই দুপুরের খাওয়াদাওয়া সেরে নেন তাঁরা৷ কারণ তারপর একটু কাছের শিলাবতী নদীতে স্নানে যাবেন একসঙ্গে৷ এরকমই পরিকল্পনা করেছিল সকলে৷ সেই পরিকল্পনা অনুযায়ীই শিলাবতী নদীতে স্নানে যান তাঁরা৷ আর সেখানেই ঘটে বিপত্তি৷

নদীর জলের তোড়ে তলিয়ে যায় সায়ন্তন বর্মা নামে ওই যুবক৷ শত চেষ্টা করলেও বন্ধুরা কোনও কিছুই করে উঠতে পারেনা৷ অবশেষে এদিন সন্ধ্যেতে স্থানীয় গড়বেতা থানায় খবর দেওয়া হয়৷ পরে খবর পেয়ে গড়বেতা থানার পুলিশ কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছায়৷ তারা মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়৷

বর্তমানে ওই যুবকের সঙ্গে থাকা বন্ধুদের জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে পুলিশ৷ এদিকে ঘটনার খবর পেয়ে পরিবারের সদস্যরা ওই বন্ধুদেরই দোষারোপ করছে৷ মৃত যুবকের পরিবারের দাবি, এই মৃত্যু স্বাভাবিক নয়৷ এর পেছনে বড়সড় কোনও চক্রান্ত কাজ করছে৷ অভিযোগের ভিত্তিতে পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখছে গড়বেতা থানার পুলিশ৷