মুম্বই : ওয়াল্ট ডিজনিও ভারতের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিল। করোনার বিরুদ্বে ভারত যখন লড়তে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছে সেই মুহূর্তে প্রয়োজন অর্থ। তাই ৫০ কোটি টাকা দান করছে ওয়াল্ট ডিজনি।

ডিজনি ও স্টার ইন্ডিয়ার পক্ষে কে মাধবন জানিয়েছেন, ‘আমরা জানি করোনার সঙ্গে ভারত কতটা লড়াই করছে। এই লড়াইয়ে আমরা জানি কতটা সাহায্যের প্রয়োজন, কারণ একলা এই লড়াই করা যায় না। সবাই একসঙ্গে চেষ্টা করলেই এই পরিস্থিতি থেমে বেরোনো সহজ হবে। তাই আমাদের সংস্থা ডিজনি ও স্টার ইন্ডিয়া একসঙ্গে ৫০ কোটি টাকা দান করছি। এর আগে প্রথম ঢেউয়ে ২৮ কোটি টাকা দান করেছিলাম আমরা। দেখলাম সমস্যা আরও বড় হয়েছে। তাই আরও বেশি সাহায্যের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। পরে প্রয়োজন হলে আবারও আমরা আর্থিক সাহায্য করব’।

করোনার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন গুগল সিইও সুন্দর পিচাই এবং মাইক্রোসফটের সিইও সত্য নাদেলা।
গুগল সিইও সুন্দর পিচাই টুইট বার্তায় উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছিলেন, “ভারতে ক্রমাগত বেড়ে চলা কোভিড সংকট দেখে বিধ্বস্ত বোধ করছি। এহেন ভয়াবহ পরিস্থিতিতে সংক্রমিত জনগোষ্ঠীর পাশে দাঁড়াতে সমস্ত রকম চিকিৎসা সহায়তার জন্য ভারতকে ১৩৫ কোটি টাকা দিচ্ছে গুগল। একাজে পিছিয়ে পড়া মানুষদের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে আন্তার্জাতিক সংস্থা ইউনিসেফ।”

মাইক্রোসফটের সিইও সত্য নাদেলা টুইট করে বলেন যে, “ভারতের কোভিড পরিস্থিতি হদয় বিদারক। বিপর্যস্ত ভারতের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য মার্কিন যুক্তরাস্ট্রের সরকারকে আমার ধন্যবাদ। এই বিপর্যয়ে সমস্ত রকমের চিকিৎসা সংক্রান্ত ত্রাণ পৌঁছে দিতে যতরকমের সহযোগিতা প্রয়োজন সবটাই করবে মাইক্রোসফট। একই সঙ্গে ভারতের জন্য অক্সিজেন কনসেনট্রেশন যন্ত্র কেনায় সহযোগিতা করবে মাইক্রোসফট”।

কেন্দ্রের স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছে ৪ লক্ষ ১২ হাজার ২৬২ জন। যা পূর্বের সমস্ত রেকর্ডকে ভেঙে দিয়েছে। একদিনে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৯৮০ জনের। গত শনিবার ৪ লক্ষ ১ হাজার ৯৯৩ জন আক্রান্ত হয়ে বিশ্বব্যাপী রেকর্ড গড়েছিল। তারপরে সংক্রমণের সংখ্যা কিছুটা কমতে দেখা যাচ্ছিল। কিন্তু বৃহস্পতিবার শনিবারে রেকর্ডও ভেঙে দিল।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশে করোনাকে জয় করে সুস্থ হয়েছে ৩ লক্ষ ২৯ হাজার ১১৩ জন। এখনও পর্যন্ত দেশে মোট সুস্থ হয়েছে ১ কোটি ৭২ লক্ষ ৮০ হাজার ৮৪৪ জন। সুতরাং মোট সক্রিয় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩৫ কোটি ৬৬ লক্ষ ৩৯৮ জন। একদিনে মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৯৮০ জনের।এখনও পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা ২৩ হাজার ১ শত ৬৮ জন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.