ফাইল ছবি৷

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বোরখার পর হাসপাতাল৷ কলকাতার সরকারি হাসপাতালগুলিতে বহিরাগত দুষ্কৃতীরা রোগী সেজে লুকিয়ে রয়েছে৷ নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানিয়েছে বিজেপি৷ রবিবার রাজ্যের ৯টি লোকসভা কেন্দ্রের ভোট রয়েছে৷ এটিই শেষ দফার নির্বাচন৷ কলকাতা উত্তর এবং দক্ষিণে নিজের গড় ধরে রাখতে শাসক তৃণমূল কংগ্রেস নাকি সরকারি হাসপাতালে রোগী সাজিয়ে ভোট লুঠেরাদের লুকিয়ে রেখেছে৷ বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছে নির্বাচন কমিশন৷

প্রসঙ্গত, বিজেপি ইতিমধ্যেই কমিশনকে অভিযোগ জানিয়েছে, তৃণমূল কংগ্রেস দুষ্কৃতীদের বোরখা পরিয়ে বুথ পাঠিয়ে ভোট ছিনতাই করতে পারে। আর সেজন্যেই কমিশনের কাছে বুথের নিরাপত্তায় মহিলা বাহিনী মোতায়েন করার দাবি জানানো হয়েছে৷ বিজেপির তরফে জানানো হয়েছে, দক্ষিণ ২৪ পরগণার মথুরাপুর, ডায়মন্ডহারবার এবং উত্তর কলকাতার কয়েকটি জায়গায় কয়েক লক্ষ কালো-সাদা বোরখার অর্ডার দেওয়া হয়েছে কেন৷ কমিশন সেই অভিযোগও খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছে৷

ফাইল ছবি

রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার নির্বাচন ম্যানেজমেন্ট কমিটির সদস্য৷ লোকসভা নির্বাচনের আইনগত বিষয়টি জয়প্রকাশ শুরু তকেই দেখছেন৷ দলীয় কর্মীদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে এই দুটি অভিযোগই জয়প্রকাশ কমিশনকে জানিয়েছেন৷ জয়প্রকাশ বলেন, ‘‘আমাদের কাছে খবর আছে, শাসকদল হাসপাতালে বাহিরাগত দুষ্কৃতীদের ঢুকিয়ে রেখেছে৷ কমিশনকে জানিয়েছি৷’’

নির্বাচন কমিশন পূর্বেই ঘোষণা করেছে, সপ্তম দফার ৯টি আসনের ১০০ শতাংশ কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকবে৷ ৭১০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকবে ১৭০৫৮টি বুথে৷ থাকছে ৪৬১ টি কুইক রেসপন্স টিম বা কিউআরটি৷ এই বাহিনীর বিশেষত্ব হল, ৫-৭ মিনিটের মধ্যে তারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে ১৫ মিনিটের মধ্যে কাজ শুরু করবে৷ কিউআরটি-কে রাস্তা চিনিয়ে নিয়ে যাবেন স্থানীয় থানার একজন কনস্টেবল৷ শহরে কলকাতা পুলিশের নিজস্ব কুইক রেসপন্স টিম বা কিউআরটি থাকবে৷ থাকবে ফ্লাইং স্কোয়াডও৷ কলকাতার রাস্তায় শুক্রবার থেকেই নাকা চেকিং চলছে৷ বেআইনি অর্থের লেনদেন রুখতে তৎপর হয়ে পুলিশ৷

ফাইল ছবি

বিধাননগর এবং কলকাতায় বিভিন্ন দোকানপাট ইতিমধ্যেই বন্ধ হয়ে গিয়েছে৷ শনিবার যারা দোকান খোলা রেখেছেন তারাও সন্ধ্যার মধ্যেই দোকান বন্ধ করে দেবেন পুলিশের নির্দেশমতো৷ অন্তত এমনটাই নির্দেশ দিয়েছে স্থানীয় পুলিশ৷ এলাকায় বহিরাগতদের প্রবেশ রুখতে পুলিশ শহরের হোটেলগুলিতে লাগাতার তল্লাশি চালাতে শুরু করেছে৷ শনিবারই বড়বাজারের হোটেলে তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ কে, কারা বা কেন কলকাতায় হোটেল ভাড়া নিয়েছেন তা খোঁজখবর করতে গিয়ে পুলিশ জানতে পেরেছে, অনেকেই কলকাতার বাসিন্দা হয়েও হোটেল ভাড়া নিয়েছেন৷ কেন তাদের হোটেল ভাড়া নিতে হল সেই কারণ খুঁজে দেখার চেষ্টা করছে পুলিশ৷ শনিবার সন্ধ্যার পর থেকেই শহরে ফের ব্যাপক তল্লাশি শুরু হতে পারে৷ নির্বাচন কমিশন শেষ দফার নির্বাচন শান্তিপূর্ণ করতে বদ্ধপরিকর৷ ৩২৪ ধারা জারি করে প্রচারপর্ব ছোট করে দিয়েছিল কমিশন৷