স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: রাত হতেই অন্ধকারের সুযোগকে লুটেপুটে নিচ্ছিল একদল মাটি মাফিয়া৷ চাষ যোগ্য জমি থেকে বেআইনি ভাবে মাটি কেটে অন্যের জমির উপর দিয়ে সেই মাটি পাচার করার অভিযোগ উঠেছে তাদের বিরুদ্ধে৷

শুধু এই অভিযোগই নয়৷ মাটি মাফিয়াদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতে গেলে আক্রান্ত হতে হয়েছে একই পরিবারের তিন সদস্যকে৷ তাদের মধ্যে দুই জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক৷ ঘটনাটি ঘটেছে পুখুরিয়া থানা সংলগ্ন ঝাড়খাটোলা গ্রামে৷

আরও পড়ুন: জল ছাড়াই ৭০ বছর কাটিয়ে বিজ্ঞানীদের বিস্ময় এই যোগী

স্থানীয় বাসিন্দারা অভিযোগ করেছেন, বিগত কিছুদিন থেকেই এলাকায় বেআইনি ভাবে চাষ যোগ্য জমি থেকে মাটি কেটে পাচার করা হচ্ছিল৷ এই কাজ করছিল বেশ কিছু স্থানীয় মাটি মাফিয়া৷ জানা গিয়েছে, এই মাটি কেটে তারা ইঁটভাটায় চালান দিত৷ এমনকি যে ইঁটভাটায় ওই মাটি চালান দেওয়া হত সেই ইঁটভাটার মালিক ওই মাটি মাফিয়াদের এলাকারি বাসিন্দা৷ নাম বাদিরুদ্দিন৷ গ্রামবাসীরা এই অভিযোগও করেছেন, এই মাটি মাফিয়ারা তৃণমূলের সক্রিয় কর্মী৷ তৃণমূলের তরফে অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে৷

তবে এলাকাবাসীর দাবি, এই মাটি পাচারের ঘটনায় ব্যাপক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে চাষের জমিগুলি৷ মাটি কেটে নেওয়ার ফলে ভালমানের ফসল উৎপাদনেও সমস্যা হচ্ছে এই জমিগুলিতে৷ তাদের অভিযোগ, সোমবার রাতে ওই মাটি মাফিয়ারা যখন তাঁদের জমির উপর দিয়ে মাটি ভর্তি ট্র্যাক্টর নিয়ে যাচ্ছিল, তখন এলাকাবাসী দুই ভাই আরজাল ও নজরুল ওই মাটি মাফিয়াদের বাধা দেয়৷ বাধা দেন গ্রামের আকবর হাজিও৷ তবে তাদের কাজে বাধা পেয়ে বাদিরুদ্দিন, তার ভাই নাইমুল ও তাদের দলবল তিনজনের উপর লাঠি, লোহার রড, ধারালো অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে চড়াও হয়৷ অভিযোগ, তিন জনকেই তারা বেধড়ক মারধর করে৷

আরও পড়ুন: বাড়িতে বসে ডিও তৈরি করুন

ঘটনার গন্ডোগোলে গ্রামবাসীরা এসে আক্রান্তদের উদ্ধার করে স্থানীয় রতুয়া হাসপাতালে নিয়ে যায়৷ সেখান থেকে বাকি দুই ভাইকে ওই রাতেই মালদহ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়৷ বর্তমানে আক্রান্ত তিন জনের মধ্যে আকবর হাজি রতুয়া হাসপাতালে ভর্তি৷

অন্যদিকে, আরজাল(৪৫) ও নজরুল(৪০) মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷ আহতরদের পরিবারের পক্ষ থেকে পুখুরিয়া থানায় বাদিরুদ্দিন শেখ সহ আট জনের নামে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে৷ অভিযোগের ভিত্তিতে ইতিমধ্যেই গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে মালদহ থানার পুলিশ৷

আরও পড়ুন: নরেন্দ্র মোদীর জন্য ৩৯০০০ কোটির ঋণে ডুবে ভিডিওকন!