দুবাই: আরব যে মাঝে মধ্যেই কিছু প্রজেক্টে দুনিয়াকে তাক লাগিয়ে দেয়, তাতে অবাক হওয়ার কিছু নেই। যেমন ধরা যাক, বিশ্বের সবথেকে উঁচু টাওয়ার বুর্জ খলিফা কিংবা পাম গাছের আকারে তৈরি আস্ত একটা দ্বীপ পাম জুমেইরা। চোখ ধাঁধিয়ে যাওয়া এইসব কীর্তির পর এবার নাকি একেবারে পাহাড় তৈরি করা চিন্তা ভাবনা করছে সংযুক্ত আরব আমিরশাহী। বৃষ্টি আনতেই নাকি এমন চিন্তাভাবনা শুরু হয়েছে।

দুবাইয়ের সংবাদপত্র ‘আরবিয়ান বিজনেস’-এ প্রকাশিত অকবর অনুযায়ী, দেশ জুড়ে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বাড়াতে কৃত্রিম পাহাড় বানানোর পরিকল্পনা নিয়েছে আরব। আর এই পরিকল্পনা নিয়ে গবেষণা চালাচ্ছে মার্কিন সংস্থা  National Center for Atmospheric Research (NCAR). কি ধরনের পাহাড় তৈরি করলে , আবহাওয়ায় কি ধরনের প্রভাব পড়তে পারে তা নিয়েই চলছে আলোচনা। কতটা উঁচু হবে, কেমন ধরনের ঢাল থাকবে- সবটাই খতিয়ে দেখা হচ্ছে। গবেষণার পর রিপোর্ট পেশ হবে, তার ভিত্তিতেই শুরু হবে কাজকর্ম।

বৃষ্টিপাতের জন্য পাহাড় খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সাধারণত পাহাড়ের একটি ঢালে বৃষ্টি হয় ও অপর দিক শুকনো থাকে। আরবে বৃষ্টি একটা বড় সমস্যা। গ্রীষ্মে খুব হাতে গোনা কয়েকদিনই বৃষ্টি হয় এদেশে। এর ফলে বিভিন্ন জায়গায় ক্রমশ জলের সমস্যা তৈরি হতে শুরু করেছে। গত কয়েক বছরে বৃষ্টির জন্য কৃত্রিম ব্যবস্থা করতে বিপুল পরিমাণ খরচ করা হয়েছে। কৃত্রিম মেঘ তৈরি করার ফলে গত বছর ২৪ ঘণ্টায় প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়, যে বন্যা পরিস্থিতি তৈরি করে।

এমনকি বিমান পর্যন্ত বাতিল করতে হয়ে। কিন্তু পাহাড় তৈরি করলে পরিমিত বৃষ্টি হবে। ১.২ মাইল উচ্চতার পাহাড় তৈরি করতে মোটামুটিভাবে ২৩০০০ কোটি ডলার খরচ হবে। এছাড়া এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করতে ইতিমধ্যেই ৪ লক্ষ ডলার খরচ করেছে সংযুক্ত আরব আমিরশাহী।