স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: তিনি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী৷ তৃণমূলের মুখ৷ লোকসভা নির্বাচনের ৪২ আসনে তিনিই ছিলেন আসল প্রার্থী৷ দাবি করেছিলেন নিজেই৷ সেই মমতাবন্দ্যোপাধ্যায়ের ওয়ার্ডেই হারল তৃণমূল৷

২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনেই বাংলায় তৃণমূল সাম্রাজ্যের রাজধানী দক্ষিণ কলকাতা লোকসভা কেন্দ্রে সিঁদ কেটেছিল বিজেপি৷ সেবার ভোটে মুখ্যমন্ত্রী মমতাবন্দ্যোপাধ্যায়ের বিধানসভা ভবানীপুরে হেরেছিল তৃণমূল৷ এবার বিধানসভার নিরিখে ভবানীপুরে তৃণমূলের জয় হলেও খোদ মমতার ওয়ার্ডের বাসিন্দারাই আস্থা হারিয়েছেনজোড়াফুলে৷ ৭৩ নম্বর ওয়ার্ডে ৪৯৬ ভোটে পিছিয়ে থাকলেন দক্ষিণ কলকাতার তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মালা রায়৷

আরও পড়ুন: দশ বছরে ৩৪ শতাংশ ভোট বাড়িয়ে বঙ্গে বাজিমাত করল বিজেপি

মালা তাঁর নিকটতম বিজেপি প্রার্থী চন্দ্র বসুকে প্রায় ১ লাখ ৫৫ হাজারেরও ভোটে হারিয়েছেন৷ দক্ষিণের সাতটি বিধানসভার মধ্যে কসবায় ৩৩ হাজার, কলকাতা বন্দরে৩৫ হাজার, বালিগঞ্জে ৫৪,৫০০, বেহালা পশ্চিমে ১৬,৬০০ ও বেহালা পূর্বে ১৫ হাজারে লিড নিতে তাঁকে দেখা গিয়েছে, ভবানীপুরে জিতলেও তা মাত্র ৩৫০০ হাজারভোটের ব্যবধানে৷ আর রাসবিহারি কেন্দ্রে তো তিনি হেরেই গিয়েছেন৷ সবমিলিয়ে দক্ষিণের মোট ২৬টি ওয়ার্ডে হেরেছেন তৃণমূল প্রার্থী৷ যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হার ৭৩ নম্বর ওয়ার্ডে৷

মোদি ম্যাজিকে এই ভোটক্ষয়কে গড়পড়তা মনে হলেও সুনির্দিষ্টভাবে এই ফল দলের কাছে রাজনৈতিকভাবে ‘অসম্মানজনক৷’কারণ পরিসংখ্যান বলছে এখানেচুপচাপ পদ্ম ফুলে ছাপ দিয়েছেন এযাবত্‍কালে তৃণমূলে ভরসা রাখা কট্টর ভোটাররাই৷