কলকাতা- পিতৃপক্ষের অবসান শেষ। শুরু হল দেবীপক্ষ। আর এই দেবীপক্ষেই আগমন হল অসুরের। তবে শরতে নয়, এই অসুর নিধন হবে শীতে। বলা ভাল, নতুন করে অকাল বোধন হবে এই শীতে। না, নতুন করে রামচন্দ্রের জন্ম হয়নি! পরিচালক পাভেল এই অকাল বোধন করছেন।

এই শীতে মুক্তি পাবে তাঁর ছবি অসুর। সেই ছবিরই টিজার প্রকাশ্যে এল আজ মহালয়ায়। এই ছবিতে একেবারে নতুন ভূমিকায় দেখা যাবে জিৎকে। পর্দায় রোম্যান্স হোক বা অ্যাকশন জিৎ তাঁর ভক্তদের কখনও নিরাশ করেননি। কিন্তু এবার একেবারে অন্য রকমের একটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। ছবিতে রয়েছেন নুসরত জাহান ও আবির চট্টোপাধ্যায়ও। জিৎ, আবির ও নুসরতকে যথাক্রমে কিগন, বোধি ও অদিতি – এই তিনটি চরিত্রে দেখা যাবে।

এই ছবিতে জিৎ অভিনীত চরিত্রটি বিশেষ ক্ষমতার অধিকারী। সে সময়ের আগে সবকিছু বুঝতে পারে। কিন্তু তাদের পাগল ভাবে তা সমাজের তথাকথিত স্বাভাবিক মানুষ। এখানে জিৎকে এমনই এক চরিত্রে দেখা যাবে। ছেঁড়া ময়লা পোশাক, লম্বা উশকো খুশকো চুল ও দাড়িতে একেবারে অন্য রূপে ধরা দিয়েছেন তিনি। কিন্তু বিশেষ ক্ষমতা নিয়ে ও পাগলের বেশে সে কী ভাবে অসুর হয়ে উঠল তা ছবি দেখলেই বোঝা যাবে। এক নতুন ইতিহাস তৈরির কথা বলে এই অসুর। আর এই অসুরকেই বধ করবে নুসরত অভিনীত চরিত্র অদিতি।

কিগন, বোধি ও অদিতি আসলে কলেজের বন্ধু। বোধি ইংরেজি সাহিত্য ও অন্যদিকে কিগন ও বোধি কলা বিভাগের পড়ুয়া। কিগন তার বিভিন্ন বিশেষ ক্ষমতা দিয়ে কী করে, কী ভাবে সে অসুর হয়ে ওঠে এবং কেনই বা তাকে অদিতির হাতে বধ হতে হয়, তা দেখা যাবে।

এই ছবির প্রযোজনা করেছে জিতের প্রযোজনা সংস্থা। পাভেল পরিচালিত অসুর কিংবদন্তী শিল্পী রামকিঙ্কর বেজকে উৎসর্গ করা হয়েছে। প্রসঙ্গত, শেষ থেকে শুরু ছবিতে জিৎ-কে কিছুদিন আগেই দেখা গিয়েছিল। অন্যদিকে বিয়ের পরে এটাই নুসরত জাহানের প্রথম ছবি। তাঁকেও একেবারে অন্য অবতারে এই ছবিতে দেখা যাবে।