স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: চলন্ত ট্রেন থেকে এক লাফ দিয়ে গুরুতর আহত হল দশম শ্রেণীর এক ছাত্রী৷ তবে আত্মহত্যা করার চেষ্টায় এই লাফ নয়৷ কারণ সম্পূর্ণ আলাদা৷ অন্য এক বন্ধুর কাছে টাকা ফেলে ট্রেনে উঠে পড়ায় সেই টাকা নেওয়ার জন্যই লাফ দিয়েছিল ওই ছাত্রী৷ শনিবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে হাওড়ার বেলুড় স্টেশন এলাকায়৷ এই ঘটনার জেরে দিনে দুপুরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়৷

আরও পড়ুন: একাধিক অভিযোগের তিরে বিদ্ধ হুগলির এই নামজাদা স্কুল

পুলিশ সূত্রে খবর, আহত ওই ছাত্রীর নাম সায়ন্তনী মণ্ডল (১৬)৷ হুগলির জিরাটের বাসিন্দা৷ এদিন পড়তে যাওয়ার নাম করে বাড়ি থেকে বেরোয় ওই ছাত্রী৷ পড়ে বন্ধুদের সঙ্গে দেখা করে তারা সকলে বেলুড় মঠে ঘুরতে যায়৷ সেখান থেকেই ফেরার পথে সে চলন্ত ট্রেন থেকে নামতে গিয়ে প্ল্যাটফর্মে পড়ে যায় বলে জানা গিয়েছে৷ ওই ছাত্রীর মাথায় গুরুতর চোট লাগে। ঘটনাস্থল থেকে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে স্থানীয় বেলুড় হাসপাতালে ভরতি করা হয়৷ তবে পরে অবস্থার অবনতি হলে হাওড়া জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয় তাকে৷ লিলুয়া জিআরপি থেকে ওই ছাত্রীর বাড়িতেও খবর দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: খুব দ্রুত রাজ্যের কর্মীদের জন্যে লাঘু হবে সপ্তম বেতন কমিশন

ওই ছাত্রীর বন্ধুদের সূত্রে জানা গিয়েছে, এক বন্ধুর কাছে সে টাকা ফেলে ট্রেনে উঠে পড়েছিল। সেই টাকাটা নিতেই ট্রেন থেকে লাফিয়ে নামতে যায় সায়ন্তনী। ট্রেনের গতি ধীরে ধীরে বাড়তে থাকায় ভারসাম্য সামলাতে পারে না সে৷ ফলত বেলুড় স্টেশনে পড়ে যায় সে। মাথায় গুরুতর চোট পায় সায়ন্তনী। বর্তমানে সায়ন্তনীর সঙ্গে থাকা বাকি বন্ধুদেরও জিজ্ঞাসাবাদ চালাচ্ছে পুলিশ৷

আরও পড়ুন: শ্রমিকের status পাচ্ছেন এবার এই রাজ্যের গৃহ-পরিচারিকারা