স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: জুনিয়র ডাক্তারদের আন্দোলনের মধ্যেই তাঁদের বেতন বন্ধের নোটিশ দিল কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে কর্তৃপক্ষ। যা ঘিরে নতুন করে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে আন্দোলনকারী জুনিয়র ডাক্তারদের মধ্যে। এই অবস্থা চলতে থাকলে আরও বৃহত্তর আন্দোলনে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তাঁরা।

করোনা পরিস্থিতিতে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজকে কোভিড হাসপাতাল হিসাবে ঘোষণা করেছিল রাজ্য সরকার। কিন্তু মেডিক্যাল কলেজের জুনিয়র ডাক্তাররা এর প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন। তাঁদের দাবি ছিল, কোভিডের সঙ্গে অন্য রোগীদেরও পরিষেবা দিতে হবে।

এই দাবিতে গত ১ জুলাই আন্দোলন শুরু করেন। জুনিয়র ডাক্তাররা। হাসপাতালের এমার্জেন্সি ওয়ার্ডের সামনে শুরু হয় অবস্থান বিক্ষোভ।গত শুক্রবার সমস্যার সমাধান করতে তাঁদের সঙ্গে কথা বলতে যান স্বাস্থ্য দফতরের ২ অধিকর্তা। কিন্তু কথা বলতে গিয়ে মেডিক্যাল কলেজের প্রিন্সিপালের ঘরে ঘেরাও হয়ে যান তাঁরা।

এদিকে, সূত্রের খবর, কোনওভাবেই জুনিয়র ডাক্তারদের দাবি মানতে নারাজ স্বাস্থ্যভবন। কোভিড হাসপাতাল হিসেবে চিহ্নিত কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে অন্য কোনও চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া যাবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে স্বাস্থ্য দফতর।

কিন্তু কেন বেতন দেওয়া হবে না? তার কারণ হিসাবে মেডিক্যাল কলেজ জানিয়েছে, তাদের কাছে টাকা নেই। টাকা এলে বেতন দেওয়া হবে। যদিও কলেজ কর্তৃপক্ষের যুক্তি মানতে নারাজ আন্দোলনকারীরা।বিক্ষুব্ধ জুনিয়র ডাক্তারদের দাবি, আন্দোলন বন্ধ করার জন্যই এই নোটিশ দিয়েছে মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষ।

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব