ফাইল ছবি

দেবময় ঘোষ, কলকাতা: মূল্যবোধ ও দায়বদ্ধতা দিয়েই অপব্যাখ্যার জবাব দিতে চান কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়। বহুদিনের পুরানো জনপ্রতিনিধি শোভন কলকাতার মেয়র পদে ছেড়েছেন বেশ কয়েক মাস হল। বন্ধু বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে এক শাড়ির দোকানে তাঁর ভিডিও ফুটেজ সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়।

সেই ভাইরাল ভিডিওর জেরে তাঁর রাজনৈতিক জীবন যে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে – তা আজকাল তিনি মেনে নেন। নিজেই বলেন, “ওই বারোশো টাকার শাড়ি ! তার জন্য এত কিছু…।” যে নেত্রী (পড়ুন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) তাঁকে এত কিছু দিয়েছেন, যে দলকে তিনি শিশু থেকে লালনপালন করেছেন, সেই শিশুর মুখের কাছে বিষের পাত্র এগিয়ে দিতে পারবেন না শোভন। কথা বলতে বলতেই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন কলকাতার ‘জল শোভন।’

বুধবার শোভন চ্যাটার্জীর বাসভবনে সাংবাদিক সম্মেলনে করেছেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু গৃহকর্তার দেখা নেই। শেষে বৈশাখীই নিয়ে এলেন শোভনকে। বেগুনি পাঞ্জাবি-সাদা পাজামাকে কলকাতা প্রাক্তন মেয়রকে দেখে মনে হল তিনি উদ্বিঘ্ন।

তাঁর কথাতেও তা-ই উঠে এল। রায়চকে বেড়াতে গিয়েছিলেন বৈশাখী এবং তাঁর পরিবারকে নিয়ে। দুষ্কৃতীরা তাঁকে খুনের হুমকি দেয়। বৈশাখকে খুন-ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হয়। দুষ্কৃতীরা হুমকি দেয়, শোভন বিজেপিতে গেলে বা ডায়মন্ড হারবারের প্রার্থী হলে দেখে নেওয়া হবে। এই ঘটনার পর মর্মাহত শোভন এখনোও ভাবছেন, নেত্রীর যখন একটি আসন ছিল তখন তাঁর পাশে ছিলেন, রাইচক পরবর্তী পর্বেও থাকবেন।

আর বিজেপি? শোভনের জবাব, “আমার সঙ্গে কেউ যোগাযোগ করে নি। আমিও করিনি। কিছু মানুষ অপব্যাখ্যা করছেন। আমি আমার মূল্যবোধ এবং দায়বদ্ধতা দিয়ে তার প্রতিবাদ করছি। তাঁরা একদিন বুঝতে পারবেন , তাঁরা কি বলেছিলেন। আমি কোনও জায়গায় অন্যায়ের কাছে আত্মসমর্পণ করিনি। করবো না।”