নিউদিল্লি: দ্যা কাউন্সিল অব আর্কিটেকচার (সিওএ) মঙ্গলবার ন্যাশনাল অ্যাপটিটিউড টেস্ট ইন আর্কিটেকচারের প্রথম পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করবে। নাটার এই ফলাফল ঘোষণা করা হবে nata.in অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে।  চলতি বছরে ১৪ এপ্রিল কম্পিউটার বেস টেস্ট এর মাধ্যমে আয়োজন করা হয়েছিল নাটার পরীক্ষাটি।

নাটার প্রথম পরীক্ষার জন্য আবেদন করেছিল প্রায় ১৫,০৬৬ জন। আর এই সমস্ত আবেদনকারীর মধ্যে থেকে ১০ এপ্রিল পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল প্রায় ১৪,১৩০ জন পরীক্ষার্থী।

২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে ব্যাচেলার ইন আর্কিটেকচার এর জন্য আগ্রহী ছাত্র-ছাত্রীদের দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষা নুন্যতম নম্বর রাখতে হবে পরীক্ষায় বসার জন্য বলে উল্লেখ করা হয়। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তরফে জানানো হয়েছে, বর্তমান করোনা ভাইরাসের মহামারীর সময় ভর্তির মানদন্ড শিথিল করা হয়েছে। এই বিভাগে ভর্তি হওয়ার জন্য অবশ্যই দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষা উত্তীর্ণ হতে হবে সকল আগ্রহী প্ররীক্ষার্থীদের।

নাটায় ভর্তি হওয়ার জন্য পরীক্ষার্থীদের ২০০ নম্বরের মধ্যে ৭৫ নম্বর অর্জণ করতে হবে, অর্থাৎ ৭৫ এর নিচে পাওয়া পরীক্ষার্থীরা নাটায় ভর্তি হওয়ার সুযোগ হারাবেন। নাটার এই নম্বরের স্কোরবোর্ড কেবলমাত্র ২০২১ শিক্ষাবর্ষের জন্য বৈধ থাকবে।

নাটা স্কোর এবং জয়েন্ট এন্ট্রান্স পরীক্ষা মেন পেপার ২ -এর মাধ্যমে জাতীয় স্তরে প্রবেশিকা পরীক্ষার ভিত্তিতে ভর্তি হওয়া যাবে স্নাতক স্তরের আর্কিটেকচারে। এছাড়াও আইআইটি, এনআইটি এবং আরো বিভিন্ন ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ট্রান্স পরীক্ষার মাধ্যমে এই বিভাগে ভর্তি হওয়া যাবে।

নাটা ২০২১ সালের দ্বিতীয় পরীক্ষা জুনের ১২ তারিখ আয়োজিয় হতে চলেছে। এই দ্বিতীয় পরীক্ষার জন্য আবেদনকারীরা ৩০ মে পর্যন্ত আবেদন করতে পারবে। কিভাবে নাটা স্কোরকার্ড ডাউনলোড করতে হবে তার একটি পদ্ধতি এই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হল।

প্রথমে সন্ধানকারী কে নাটার অফিশিয়াল ওয়েবসাইট nata.in -এ প্রবেশ করতে হবে। সেখানে ‘নাটা ২০২১ রেজাল্ট’ এর একটি অপশন প্রদর্শিত হবে, সেই অপশনে নিজের আইডি পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করলে ফোন বা ল্যাপটপের পর্দায় ভেসে উঠবে স্কোরবোর্ডটি। আর এর পরে পরীক্ষার্থী ডাউনলোড করতে পারে নাটার স্কোরবোর্ড।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.