ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : নিজেদের বরাবরই অরাজনৈতিক সংগঠন হিসেবে দাবি করে এসেছে আর এস এস। তবে বিধানসভা হোক বা লোকসভা, বিজেপির ক্ষমতায় আসার পেছনে আর এস এস-এর যে একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকে সে বিষয়ে একমত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। ২০১৪ সালে বিপুল ভোটে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতায় নরেন্দ্র মোদীর ক্ষমতায় আসার পেছনেও আর এস এস-এর অবদান ছিল অনেকখানি।

তবে ২০১৯ লোকসভা ভোটের ছ’মাস বাকি থাকলেও সেই অর্থে এখনও প্রস্তুতি শুরু করেনি আর এস এস, এমনটাই জানাচ্ছেন রাজ্যের এক আর এস এস শীর্ষ নেতা। যেকোন ধরনের ভোটের আগে আর এস এস এবং বিজেপি নেতাদের মধ্যে একটি সমন্বয় বৈঠক হয়ে থাকে। সংঘের কার্যকর্তার দাবি মতো শেষ লোকসভা ইলেকশনের আটমাস আগেই সেই সমন্বয় বৈঠক শুরু হয়ে গিয়েছিল এবং জোরকদমে চলেছিল মোদী সরকার গড়ার প্রস্তুতি। কিন্তু এবার এখনো মাঠে নামেনি আর এস এস।

এর কারণ কী? এই প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে গিয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আর এস এস কার্মকর্তা জানান, আমরা এখনো উপরমহল থেকে নির্দেশ পাইনি। নির্দেশ আসলেই আমাদের সমন্বয় বৈঠক শুরু হবে। তারপর সমস্ত কর্মকর্তারাই দায়িত্বমতো কাজ করতে শুরু করবেন।”

রাজ্যে রথযাত্রাকে লোকসভা ভোটের প্রস্তুতি হিসেবেই দেখছিল বিজেপি। কিন্তু রাজ্য সরকারের বিরোধ ও হাইকোর্টের শুনানিতে দেরি হওয়ার কারণে সময়মতো রথযাত্রা শুরু করতে পারেনি বিজেপি। যদিও কয়েকদিন আগে রথযাত্রা শুরু হবার একটি আশা জেগেছিল। কিন্তু পরদিনই হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির স্থগিতাদেশে রথযাত্রা পিছিয়ে গেছে জানুয়ারী অবধি।

রথযাত্রাকে সামনে রেখে রাজ্যে আসার কথা ছিল একাধিক বিজেপি শীর্ষনেতার। বিজেপি সূত্রের খবর রথযাত্রা হলে রাজ্যের কমপক্ষে ১০ শতাংশ ভোট তাদের পক্ষে আসতে পারত। তাই রাজনৈতিক রথযাত্রার গুরুত্ব বুঝতে পেরেই সরকার রথযাত্রায় বাধা সৃষ্টি করেছে। কয়েকদিন আগে পর্যন্তও রথযাত্রার জন্য মানসিক প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন আর এস এস ও বিজেপির কর্মীরা। রথযাত্রা পিছিয়ে যাওয়ায় অনেকটাই মনোবল ভেঙে পড়েছে তাদের বলে বিশেষজ্ঞদের মত। তবে আগামী জানুয়ারীতেই পরিষ্কার হয়ে যাবে রাজ্যে রথযাত্রা করার অনুমতি বিজেপি পাচ্ছে কিনা। তারপরই হয়ত লোকসভা ভোটের জন্য মাঠে নামতে পারে আর এস এস।