স্টাফ রিপোর্টার, বারাসত: ফের প্রকাশ্যে এল রাজ্য পুলিশের করুণ চেহারা৷ আসামী ধরতে গিয়ে দুষ্কৃতীদের হাতে আক্রান্ত হলেন মহিলা পুলিশ কর্মীসহ আহত চারজন৷

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার রাতে নারী ও শিশু পাচারকারী আব্দুল কালাম তরফদার নামে দুষ্কৃতীকে ধরতে বনগাঁ মহকুমার মাছডোব এলাকার যৌথ অভিযানে নামে হেয়ারস্ট্রিট থানা ও গোপালনগর থানার পুলিশ৷ গ্রামে ঢুকে শুরু হয় পুলিশি তল্লাশি৷ এলাকায় পুলিশি তল্লাশির খবর পেতেই কালামের অনুগামীরা পুলিশের ওপর হামলা চালায় বলে পুলিশ সূত্রে খবর৷

অভিযোগ, পুলিশ হেফাজতে থাকা গোলাম মোস্তফা মণ্ডলকে ছিনিয়ে নেয় তার অনুগামীরা৷ শুরু হয় তাণ্ডব৷ দুষ্কৃতীদের তাণ্ডবে পুলিশের বেশ কয়েকজন আহত হন৷ কলকাতা পুলিশের দু’জন পুলিশ কর্মী আহত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে৷ আহত এসআই শ্রাবন্তী ঘোষ ও এসআই অজিত স্বর্ণকার বনগাঁ মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন৷ বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা করে ছেড়ে দেওয়া হয়৷

এই ঘটনার পর শুক্রবার রাতেই ওই গ্রামে ঢুকে পুলিশ পাল্টা তাণ্ডব শুরু করে বলে অভিযোগ মাছডোব এলাকার বাসিন্দাদের৷ পুলিশের উপর আক্রমণের ঘটনায় সাত জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে বলেও জানা গিয়েছে৷ পরে বনগাঁ এসডিপিও অনিল রায় ও সিআই পার্থ সান্যালের নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বাহিনী গিয়ে ঘটনাস্থল ঘিরে ফেলে৷ অভিযুক্তদের রবিবার বনগাঁ মহকুমা আদালতে তোলা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ৷

অন্যদিকে, বাসন্তীতে ফের আক্রান্ত পুলিশ৷ পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টির অভিযোগ৷ ঘটনায় দুই পুলিশ কর্মী আহত হয়েছেন৷ বাসন্তী থানার ৯ নম্বর কুমড়োখালি গ্রামের ঘটনা৷ দেবদাস সাফুই নামে এক আসামিকে গ্রেফতার করতে এলে বাঁধা দেয় পুলিশ৷ সেই সময় পুলিশের সঙ্গে গ্রামবাসীদের ধস্তাধস্তি হয়৷ গ্রামবাসীদের অভিযোগ আসামি ধরার নাম করে গ্রামে ঢুকে মহিলাদের মারধর করেছে পুলিশ৷ সেই কারণে মহিলারা পথে নেমে পুলিশকে আসামি ধরতে বাঁধা দেয়৷ যদিও পুলিশ অভিযুক্ত ওই আসামিকে গ্রেফতার করেছে৷ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা রয়েছে৷ এলাকায় ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে৷