স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: ৬০ বছরের ব্যবধানে ফের পা রাখলেন সেই স্কুলে৷ ঘটনাস্থল, আমতার তাজপুর এমএনরায় ইন্সটিটিউশন৷ স্বভাবতই, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কিছু মুহূর্তের জন্য নস্টালজিয়ায় ডুবে গেলেন দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়৷ বললেন, ‘‘এই স্কুলের সঙ্গে আমার আন্তরিক সম্পর্ক খুবই নিবিড়৷ আমি আজও এই স্কুলের সেই সব দিন খুব মিস করি৷’’

সোমবার তাজপুর এমএনরায় ইন্সটিটিউশনের শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে স্মারক তোরণ এবং স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা এমএনরায়ের আবক্ষ মূর্তি উন্মোচনের আয়োজন করেছিলেন স্কুল কর্তৃপক্ষ৷ উদ্বোধক হিসেবে হাজির ছিলেন দেশের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি তথা সংশ্লিষ্ট স্কুলের প্রাক্তন সহশিক্ষক প্রণব মুখোপাধ্যায়৷ স্কুল সূত্রের খবর, ১৯৫৭ সালে প্রায় সাত মাস শিক্ষকতা করেছিলেন প্রণববাবু। স্বভাবতই তাঁর আগমনকে ঘিরে ছাত্রছাত্রী থেকে শিক্ষকমহলে মধ্যে তৈরি হয়েছিল আবেগঘন মুহূর্ত৷

এদিন তাঁর সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলেন স্কুলের বেশ কয়েকজন প্রাক্তন ছাত্র, যাঁরা বর্তমানে সমাজের বিভিন্নস্তরে সুপ্রতিষ্ঠিত। পুরনো ছাত্রদের কাছে পেয়ে আবেগতাড়িত হয়ে পড়েন প্রণববাবুও। পড়ুয়াদের উদ্দেশ্যে প্রণববাবু বলেন, ‘‘তোমরাই সমাজের ভবিষ্যৎ৷’’ ছাত্রছাত্রীদের মাথা উঁচু করে চলার সঙ্গে দৃঢ়চেতা হওয়ার পরামর্শ দিয়ে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘‘স্বামী বিবেকানন্দ সহ বিভিন্ন মনীষীদের জীবনী নিয়মিত পড়ার অভ্যাস গড়ে তোলো৷ তাতে নিজেরা সুব্যক্তিত্বের অধিকারী হতে পারবে৷’’ এদিনের অনুষ্ঠানে প্রণববাবু স্বতস্ফূর্তভাবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, ‘‘মমতার আমলে বাংলার সার্বিক উন্নয়ন হয়েছে৷ সবাইকে নিয়ে খুব সুন্দরভাবে রাজ্য চালাচ্ছেন মমতা।’’