শেখর দুবে: দু’জনের বয়সই ৭৫ পেরিয়েছে৷ কিন্তু তাতে ফুটবল আবেগে এতটুকুও ভাটা পড়েনি৷ শেষ ৪০ বছরে সাক্ষী থেকেছেন ৯টি বিশ্বকাপের৷ এবারেও পা বাড়িয়েছে রাশিয়ার উদ্দেশ্যে৷ পান্নালাল চট্টোপাধ্যায় এবং চৈতালি চট্টোপাধ্যায়, খিদিরপুরের ছোটো ফ্ল্যাটের সাদামাটা মধ্যবিত্ত জীবনের দুই ফুটবলপ্রেমী বাসিন্দা৷ একপ্রকার অসাধ্যসাধন করেছেন, গ্যালারি থেকে উপভোগ করেছেন ন’টি বিশ্বকাপ৷ এবারেও ভারতের জাতীয় পতাকা হাতে এই দম্পতি উপস্থিত থাকবেন রাশিয়ার গ্যালারিতে৷ চট্টোপাধ্যায় দম্পতির রাশিয়া সফরের আগে তাঁদের সম্বর্ধনা জানাল সুকীয়া স্ট্রিটের ১০৯ বছরের বৃন্দাবন মাতৃ মন্দির বারোয়ারি দুর্গা পূজা কমিটি৷

অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে পান্নালালবাবু এবং চৈতালি দেবী জানান স্পেনের বিশ্বকাপ দিয়ে শুরু হয়েছিল এই বিশ্বকাপ দর্শন সফর৷ তবে ফুটবল পাগল এই দম্পতির রাশিয়া বিশ্বকাপের গ্যালারিতে পৌঁছনোর রাস্তাটা মোটেও সহজ ছিল না৷ পেনশনের টাকা জমিয়ে বিভিন্ন দেশ ঘুরে বিশ্বকাপ উপভোগ অনেকটাই কষ্টের৷ তবে ফুটবলের জন্য কষ্ট স্বীকার করতে কোনও অসুবিধে হয়নি এই দম্পতির৷ বছরের পর বছর কাটছাঁট করেছেন নিজেদের দৈনন্দিন চাওয়া পাওয়াতে৷

রাশিয়ার উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়ার আগে খিদিরপুরের ফুটবল পাগল এই দম্পতিকে বৃন্দাবন মাতৃ মন্দির বারোয়ারি দুর্গা পুজোকমিটি সম্বর্ধনা জানায়৷ কমিটির সহ সভাপতি শিবেন্দু মিত্র কলকাতা২৪x৭-কে বলেন, ‘বাঙালির দু’টো বড় উৎসব, দুর্গা পুজো এবং ফুটবল বিশ্বকাপ৷ রাশিয়া বিশ্বকাপ উৎসবে এই দুই দম্পতিই আমাদের পুরোহিত৷ আমরা ক্লাবের পক্ষ থেকে ওনাদের হাতে আমাদের জাতীয় পতাকা তুলে দিয়েছি, যাতে রাশিয়ার গ্যালারিতে আর্জেন্তিনা, ব্রাজিলের পতাকার মাঝে আমাদের তেরঙ্গাও উড়তে পারে৷’