নিবেদিতা দে, কলকাতা: রাজ্য়মন্ত্রী সভায় বড়সড় রদবদল৷ তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী ব্রাত্য বসুকে তার পদ থেকে সরে অন্য দ্বায়িত্বে এলেন৷ ব্রাত্য বসুর পরিবর্তে সেই পদে বসলেন অমিত মিত্র, তিনি ইতিমধ্যেই রাজ্যের শিল্প এবং অর্থমন্ত্রী৷

বিজ্ঞপ্তি জারি করে এই পরিবর্তনের কথা জানানো হয়েছে৷

অন্যদিকে ব্রাত্য বসু রাজ্যে জৈব প্রযুক্তি দফতরের দায়িত্বে রয়েছেন৷ রাজ্যের অন্য মন্ত্রী অসীমা পাত্রের(বর্তমানে তিনি পরিকল্পনা এবং অনগ্রসর উন্নয়ন দপতরের প্রতিমন্ত্রী) দায়িত্ব কিছুটা বেড়ে কৃষি এবং মৎস্য দফতরের প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে৷

প্রসঙ্গত, শিল্প এবং অর্থমন্ত্রী হিসেবে অমিত মিত্রই রাজ্যের মুখ হিসেবে দেশ বিদেশে পরিচিত৷

বিশ্ববঙ্গ বাণিজ্য সম্মেলন থেকে শুরু করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শিল্পের খোঁজে বিদেশ সফর সবকিছুর পিছনেই অমিত মিত্রের মতামত এবং যোগাযোগ একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে৷

পশ্চিমবঙ্গকে দেশের তথ্যপ্রযুক্তির মানচিত্রে অনতম জায়গা করে দিতেই এই বর্ষীয়ান অর্থনীতিবিদের ওপরেই ভরসা রাখছেন মমতা, এমনই মত বিভিন্ন মহলের৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।