ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: অবশেষে সরকারি ভাবে ভাটপাড়া পুরসভার দায়িত্ব নিল তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত পুরবোর্ড। দলের নির্দেশে ভাটপাড়া পুরসভার নতুন পুরপ্রধান নির্বাচিত হয়েছেন ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলর অরুণ বন্দোপাধ্যায়। আর এদিন সরকারি ভাবে পুরসভার দায়িত্বে নিয়ে, নবনিযুক্ত পুর প্রধান হিসেবে তাঁর প্রথম কাজের কথা জানালেন অরুণ বন্দোপাধ্যায়।

দীর্ঘদিন পুরসভার কর্মীদের বকেয়া বেতন এবং অবসরপ্রাপ্ত কর্মীদের পেনশনের ব্যবস্থা করে দেওয়াই হবে তাঁর অন্যতম প্রধান কাজ। সেই সঙ্গে রাজ্য সরকারের সঙ্গে কথা বলে আগে কর্মীদের বেতন দেওয়ার ব্যবস্থা করবেন বলেও জানান তিনি।

মঙ্গলবার তাঁকে সর্বসম্মতি ক্রমে ভাটপাড়া পুরসভার তৃণমূল পরিচালিত পুর বোর্ডের চেয়ারম্যান হিসেবে বেছে নেন, বর্তমানে তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে থাকা ১৯ জন কাউন্সিলরই। তবে ভাটপাড়া পুরসভার পুরপ্রধানের দ্বায়িত্ব নিয়ে নিজের প্রতিক্রিয়ায় অরুণ বন্দোপাধ্যায় বলেন, “দলের নির্দেশে আমি বড় কাজের দ্বায়িত্ব পেয়েছি। নিজের সব দ্বায়িত্ব নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করব। আমার প্রথম কাজ হবে, দীর্ঘদিন পুরসভার কর্মীদের এবং এখানকার অবসরপ্রাপ্ত কর্মীদের পেনশনের ব্যবস্থা করা। রাজ্য সরকারের সঙ্গে কথা বলে আগে কর্মীদের বেতন দেওয়ার ব্যবস্থা করব। ওরা বেতন পেলেই এই পুরসভার সমস্ত পরিষেবা খুব শীঘ্রই স্বাভাবিক হয়ে যাবে। আমাদের মাথার উপর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আশীর্বাদ আছে। মানুষের সমর্থন আমাদের সঙ্গে আছে। ভাটপাড়া পৌরসভায় বিগত দিনে যারা বোর্ড চালিয়েছিল, তাঁদের সমস্ত কাজকর্মের অডিট করা হবে। সেখানে কারুর কোনও দুর্নীতি প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

তিনি আরও বলেন, “আমাকে আমার সহকর্মীরা ১৯ জনই দুহাত তুলে সমর্থন জানিয়েছে। পুরপ্রধান নির্বাচন নিয়ে দলের অন্দরে কোনও মতভেদ নেই। আমরা সবাই একটা টিম হয়ে ভাটপাড়া পুরসভার হৃত গৌরব ফিরিয়ে এনে উন্নয়নের ধারাকে এগিয়ে নিয়ে যাব।”

এদিকে মঙ্গলবারই ভাটপাড়া পুরসভার নবনিযুক্ত পুরপ্রধান অরুণ বন্দোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানাতে ভাটপাড়ায় আসেন উত্তর ২৪ পরগনা জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের পর্যবেক্ষক তথা পানিহাটি বিধানসভার বিধায়ক নির্মল ঘোষ। নির্মল ঘোষ বলেন, “বুধবার থেকেই স্বাভাবিক ছন্দে ফিরবে এই ভাটপাড়া পুরসভা। অরুণ বন্দোপাধ্যায় খুব ভালো কাজ করবে বলে আমার বিশ্বাস। দল ওকে যে দায়িত্ব দিয়েছে তা ও নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করবে। কর্মীদের বেতন নিয়মিত হবে, পেনশনাররা সময়মত পেনশন পাবেন, সাধারন মানুষ পরিষেবা পাবে। তবে, ভাটপাড়া পুরসভার উপপ্রধান কে হবেন তা এখনও ঠিক হয়নি। দলের সব কাউন্সিলররা মিলে সেই সিদ্ধান্ত নেবেন। আগামী ৫/৭ দিনের মধ্যে এই পুরসভার উপ পুরপ্রধান কে হবেন, তা স্থির হয়ে যাবে।”

এদিকে এদিন ভাটপাড়া পুরসভায় তৃণমূল কর্মীরা উৎসব পালন করেন। পুরসভার পুরপ্রধানের চেয়ারে বসার আগেই অরুণ বাবু রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি নিয়ে এসে রাখলেন নিজের ঘরে। মুখ্যমন্ত্রীর ছবিতে প্রণাম করে পুরপ্রধানের চেয়ারে বসেন তিনি। ভাটপাড়া পুরসভার অন্যান্য তৃণমূল কাউন্সিলররা জানালেন, দলের নির্দেশে আমরা পুরপ্রধান নির্বাচন করেছি। এই ভাটপাড়া পুরসভায় আগামীদিনে উন্নয়নের জোয়ার বইবে।