স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি:  স্ত্রী কঠিন অসুখে আক্রান্ত। চিকিৎসার জন্য প্রয়োজন প্রচুর টাকার। সেইমত স্বামী নিজের জমিজমা বন্ধক দিয়ে স্ত্রীর চিকিৎসার জন্য জোগাড় করেও ফেলেছিলেন প্রায় লাখ তিনেক টাকা। কথা ছিল বৃহস্পতি বারই চিকিৎসার জন্য স্ত্রীকে নিয়ে যাবেন বেঙ্গালুরুতে। কিন্তু গন্তব্যে যাওয়ার আগেই বাড়ি থেকে খোয়া গেল তিন লাখ টাকা সহ তিনটি মোবাইল ফোন, আধার কার্ড এবং এটিএম কার্ড। চোরের এই কাণ্ডে রীতিমত মাথায় আকাশ ভেঙে পড়েছে পেশায় কাঠমিস্ত্রী প্রভাত সরকারের।

জানা গিয়েছে, দুষ্কৃতীরা তার ঘরের মাটির ভিত কেটে মঙ্গলবার গভীর রাতে ঘর থেকে তিন লাখ টাকা সহ মোবাইল এবং অন্যান্য দরকারি জিনিস নিয়ে পালিয়ে যায়। চাঞ্চল্যকর এই চুরির ঘটনাটি ঘটেছে, জলপাইগুড়ি জেলার ময়নাগুড়ি শহরের সাহাপাড়ায়। এদিকে অভাব অনটনের সংসারে এতগুলো টাকা খোয়া যাওয়ায় পরিবারের সদস্যদের মাথায় হাত পড়েছে। এদিকে বুধবার সকালেই ওই পরিবারের তরফে ময়নাগুড়ি থানায় চুরির ব্যাপারে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ময়নাগুড়ি থানার পুলিশ।

এদিকে ওই পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, স্ত্রী এবং এক মেয়েকে নিয়ে ময়নাগুড়ি শহরের সাহাপাড়ায় বাস করেন পেশায় কাঠমিস্ত্রী প্রভাত সরকার। তার স্ত্রী ভীষণ অসুস্থ এবং শয্যাশায়ী হওয়ায় বেঙ্গালুরুতে গিয়ে তার চিকিৎসা করানোর জন্যই জমি বন্ধক দিয়ে অতগুলো টাকা জোগাড় করেছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার তাঁদের বেঙ্গালুরুর উদ্দেশ্যে রওনা দেবার কথাও ছিল। কিন্তু বুধবার ভোরবেলা ঘুম থেকে উঠে এই কাণ্ড চোখে পড়তেই মাথায় আকাশ ভেঙে পড়েছে ওই অসহায় পরিবারের।

প্রভাত বাবুর মেয়ে পরিণীতা সরকার জানান, সে একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ করলেও, মায়ের অসুস্থতার জন্য ঠিক মত অফিস যেতে পারেননা। ফলে সেই চাকরিও তার এখন চলে যাওয়ার পথে। এর মধ্যেই এত গুলো টাকা মোবাইল ফোন খোয়া যাওয়ায় এখন কীভাবে সংসার চালাবে তাই ভেবে রীতিমত ফাঁপরে পড়েছেন তাঁরা। এই অবস্থায় তাঁদের পরিবারের পাশে এসে যদি কোনও সহৃদয় ব্যক্তি দাঁড়ান তাহলে তাঁরা খুব উপকৃত হবে বলেও জানান প্রভাত বাবুর মেয়ে পরিণীতা সরকার।