প্রতীতি ঘোষ, বারাকপুর: বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের পর তালা ভাঙা হল উত্তর ২৪ পরগণার কামারহাটি সাগর দত্ত মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে৷ হাসপাতাল সুপারের নির্দেশে পুলিশের উপস্থিতিতে জরুরি বিভাগের গেটের তালা ভেঙে চালু করা হয় জরুরি পরিষেবা৷

জুনিয়র চিকিৎসকদের দুই দিন ব্যাপী ধর্না ব্যাপক বিপাকে পড়েছে রোগীরা৷ বন্ধ জরুরি বিভাগের পরিষবা৷ অন্যান্য হাসপাতালগুলির মতো উত্তর ২৪ পরগণার কামারহাটি সাগর দত্ত মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে গত মঙ্গলবার থেকে চলছে জুনিয়র ডাক্তারদের বিক্ষোভ। যার জেরে এই হাসপাতালে সম্পূর্ণভাবে ভেঙ্গে পড়েছে চিকিৎসা পরিষেবা। রোগী ও তার পরিজনেরা ধৈর্য হারিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে পথ অবরোধ করে বিটি রোডের কামারহাটি মোড়ে।

খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে পৌঁছে যায় বেলঘরিয়া থানার পুলিশ। তারা কিছুক্ষণের মধ্যেই অবরোধকারীদের হটিয়ে দেয়। এরপরে তারা বন্ধ জরুরি বিভাগের তালা ভাঙার চেষ্টা করে। পুলিশ এসে হস্তক্ষেপ করে উত্তেজিত রোগীদের আত্মীয়দের সরিয়ে দেয়। এরপর হাসপাতাল সুপারের নির্দেশে পুলিশের উপস্থিতিতে জরুরি বিভাগের গেটের তালা ভেঙ্গে চালু করা হয় জরুরি পরিষেবা৷

সাগর দত্ত হাসপাতালে উত্তেজনা থাকায় রয়েছে পুলিশ পিকেট। যাতে নতুন করে কোন রকম অশান্তি না ছড়ায় সেজন্য বেলঘরিয়া থানার পুলিশ ওই হাসপাতালে নজরদারি রেখেছে। এরপর হাসপাতাল সুপারের নির্দেশে পুলিশের উপস্থিতিতে জরুরী বিভাগের গেটের তালা ভেঙ্গে চালু করা হয় জরুরী পরিষেবা।

ইতিমধ্যে এই হাসপাতালে এখনও পর্যন্ত ১১ জন চিকিৎসক ইস্তফা দিয়েছেন। যাদের মধ্যে মেডিসিন বিভাগের একাধিক চিকিৎসক রয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। কাজের পরিবেশ নেই। আর এই দাবিতে গনইস্তফার পথে ডাক্তাররা। নিজেদের বিভাগীয় প্রধানদের কাছে ডাক্তাররা তাঁদের ইস্তফা পাঠিয়ে দিয়েছেন।