স্টাফ রিপোর্টার, বর্ধমান: স্বামী পরিত্যক্তা এক অসহায় মহিলাকে উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার ব্যবস্থা করল জেলা লিগ্যাল সার্ভিসেস অথরিটি৷

বর্ধমান জেলা আইনি পরিষেবা কেন্দ্রের সম্পাদক বিচারক জয়প্রকাশ সিং জানান, কয়েকদিন আগে তাঁদের কাছে খবর আসে এক অসহায় মহিলা দুর্ঘটনায় আহত হয়ে প্রায় দেড়মাস ধরে বাড়িতেই শয্যাশায়ী রয়েছেন৷

আরও পড়ুন: সিবিআই অফিসার সেজে স্বর্ণব্যবসায়ীকে প্রতারণা

এই খবর পাওয়ার পর প্যারা লিগ্যাল ভলান্টিয়ার নির্মলেন্দু জুঁই ও মিরাজুল ইসলামকে পাঠানো হয় লক্ষ্মীপুর মাঠ এলাকায় তাঁর ভাড়া বাড়িতে৷ একইসঙ্গে জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিককে ওই মহিলার চিকিৎসার ব্যবস্থা করার জন্য বলা হয়৷ বৃহস্পতিবার শান্তা সামন্ত নামে ওই মহিলাকে তাঁর বাড়ি থেকে উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়েছে৷

নির্মলেন্দু জুঁই জানিয়েছেন, ওই মহিলার স্বামী প্রাক্তন আইএএস৷ বর্তমানে তিনি দিল্লিতে থাকেন একমাত্র মেয়েকে নিয়েই৷ দীর্ঘদিন ধরেই শান্তাদেবীর সঙ্গে তাঁদের কোনও সম্পর্কও নেই৷

আরও পড়ুন: স্ত্রীকে সন্দেহ করে শাশুড়িকে বঁটি দিয়ে কোপাল জামাই

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I