স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: দীর্ঘ দিনের পরিচিত স্বর্ণশিল্পীর কাছে প্রচারিত৷ ১০ লক্ষ টাকার গয়না বিক্রির ছলে প্রতারণা৷ বালিগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের৷ পুলিশ তদন্তে নেমে প্রতারক স্বর্ণশিল্পকে গ্রেফতার করে৷ এবং উদ্ধার করে গয়না৷

কলকাতা পুলিশ সূত্রে খবর, চলতি মাসে বালিগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ জমা পড়ে৷ অভিযোগ করেন বালিগঞ্জ সার্কুলার রোডের বাসিন্দা সরোজ লাডিয়া মিত্র৷ তার অভিযোগ ছিল, হুগলীর খানপুর শিবতলার বাসিন্দা প্রদীপ শিট নামে একজন স্বর্ণকার তার সঙ্গে প্রতারণা করেছেন৷ কিভাবে প্রতারণা?

আরও পড়ুন : ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ১৫ লক্ষ দেবেন তা প্রধানমন্ত্রী কখনও বলেননি: দিলীপ ঘোষ

তার উত্তরে সরোজ লাডিয়া মিত্র জানান, তার হৃদযন্ত্রের অসুখ ধরা পড়ায় চিকিৎসার জন্য হঠাৎই বেশ কিছু টাকার প্রয়োজন হয়ে পড়ে৷ তাই দীর্ঘ ২০ বছরের পরিচিত ওই স্বর্ণকারের সঙ্গে যোগাযোগ করি৷ এবং চুক্তিপত্রে সই করে ১০ লক্ষ টাকার গয়না তার হাতে তুলে দেই৷ যাতে ওই সোনার গহনা বিক্রি করে আমাকে নগদ টাকা যোগার করে দেন চিকিৎসার জন্য৷

এরপর চুক্তি অনুযায়ী, এক মাসের জায়গায় ৬ মাস কেটে যায়৷ এদিকে টাকার অভাবে চিকিৎসা শুরুই করতে পারছেন না সরোজ লাডিয়া মিত্র৷ এদিকে প্রদীপ গয়না বিক্রির টাকা দিতে টালবাহানা করতেই থাকেন।ফোন করলে জানায়, গয়নার খরিদ্দার নাকি এখনও টাকা মেটায়নি। প্রথমদিকে সেই কথা বিশ্বাস করেছিলেন শ্রীমতী মিত্র। কিন্তু, পরে বুঝতে পারেন প্রদীপ মিথ্যে বলছে। প্রতারণা করে গয়নাগুলি হাতিয়ে নেওয়াই আসলে তার উদ্দেশ্য। এরপরেই বালিগঞ্জ থানায় অভিযোগ জানান তিনি।

অভিযোগ পাওয়ার পর দ্রুত প্রদীপ শিটকে তার হুগলীর বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে বালিগঞ্জ থানার বিশেষ টিম। প্রথমে তদন্তকারী অফিসারদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছিল প্রদীপ। বলছিল, দিল্লির একজন গয়না ব্যবসায়ী গয়নাগুলি কিনেছে, কিন্তু এখনও টাকা মেটায়নি।

আরও পড়ুন : কুরুচিকর মন্তব্য, বাংলার বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি কমিশনের

যদিও, সেই ব্যবসায়ীর নাম-ঠিকানা-ফোন নম্বর কিছুই বলতে পারেনি সে। অবশেষে জেরার মুখে প্রদীপ জানায়, গয়নাগুলি সে বিক্রিই করেনি। ভবানীপুরে তার একটা পুরোনো গয়নার দোকান আছে। এখন সেটা বন্ধই পড়ে থাকে। সেখানেই সে লুকিয়ে রেখেছে সমস্ত গয়না।

প্রদীপ ভেবেছিল, ঐ ভুয়ো খদ্দেরের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে সমস্ত গয়নাই হাতিয়ে নেবে।ভবানীপুরের সেই দোকানে তল্লাশি চালান বালিগঞ্জ থানার অফিসারেরা। উদ্ধার হয় সমস্ত গয়নাই। এরপরই তাকে গ্রেফতার করা হয়৷ ধৃত স্বর্ণ শিল্পী প্রদীপ শিটকে আদালতে তোলা হলে আদালত ২৬ এপ্রিল পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে৷