হাওড়া: করোনার জেরে সারা দেশে চলছে লকডাউন৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ঘোষণা মত ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত চলবে এই লকডাউন৷ তারপর লকডাউন বাড়বে কিনা, তা নিশ্চিত নয়৷ কিন্তু করোনার হাত থেকে বাঁচতে লকডাউনে আর্থিক অনটনে ভুগছেন দিন আনা দিন খাওয়া মানুষগুলি৷ দেশের দুর্দিনে সম্প্রতির বার্তা দিয়ে মুসলিম পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন তৃণমূলের প্রাক্তন এক পুরোপিতা৷

লকডাউনের জেরে বিপদে পড়েছেন হাওড়ার ১৯ নং ওয়ার্ডের মুসলিম অধ্যুষিত দিন আনা দিন খাওয়া অনেক পরিবার। এরা মূলত হাওড়ার ছোট ছোট ঢালাই ঘরে কাজ করে দৈনিক আয়ে সংসার চালান। কেউ করেন শ্রমিকের কাজ। কেউবা ভ্যান চালান। কেউ ট্রলি বা রিক্সাও চালান। কিন্তু লকডাউনে ঘরে বসে থাকায় কার্যত উপার্জনহীন এই পরিবারগুলি৷

তাই লকডাউন পরিস্থিতিতে কারখানা ও কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়া এলাকায় মুসলিম পরিবারগুলির পাশে দাঁড়ালেন প্রাক্তন পুরোপিতা৷ ঢালাই ঘরে এখন কাজ বন্ধ থাকায় এরা কার্যত দুর্ভোগের শিকার। হাতে টাকা নেই। খাবার কিনতে হিমসিম অবস্থা। মঙ্গলবার সকালে এমন প্রায় কয়েকশ দিন আনা দিন খাওয়া পরিবারের হাতে খাদ্যসামগ্রী তুলে দিলেন এলাকার প্রাক্তন তৃণমূল কাউন্সিলর গৌতম দত্ত।

স্থানীয় জোলাপাড়া মসজিদ লেন, বসিরুদ্দিন মুন্সী লেন, নুর মোহাম্মদ মুন্সী লেন সহ বিভিন্ন এলাকায় বসবাসকারী মানুষের হাতে এদিন চাল, ডাল, আটা, সোয়াবিন প্রভৃতি খাদ্যসামগ্রী তুলে দেওয়া হয়। গৌতমবাবু বলেন, এই কর্মসূচি চলবে। প্রথম দিনে প্রায় সাড়ে সাতশ পরিবারের হাতে এই খাদ্যসামগ্রী দেওয়া হয়েছে। আগামীদিনে হরিজন বস্তি-সহ আরও এলাকা মিলিয়ে প্রায় দেড় হাজার পরিবারকে এই সহায়তা দেওয়া হবে।