স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ৫০ বছরে পা দিলো এসএফআই। সিপিএমের ছাত্র সংগঠনের প্রথম সাধারণ সম্পাদক বিমান বসু শনিবার দমদমে শহীদ বেদীতে মালা দিয়েছেন।

৫০ বছর আগে দমদম থেকেই যাত্রা শুরু হয়েছিল স্টুডেন্টেড ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া বা এসএফআই-এর যাত্রা শুরু হয়েছিল। শনিবার দমদমে চলছে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। উপস্থিত আছেন, বিমান বসু, এম এ বেবি, গৌতম দেব, নীলৎপল বসু, শ্যামল চক্রবর্তী, কে এল বাল গোপাল, সুজন চক্রবর্তী, শমীক লাহিড়ী। এসএফআই সাধারণ সম্পাদক ময়ূখ বিশ্বাস এবং সভাপতি ভিপি সানু রয়েছেন।

৫০ বছরে বেশ কিছু পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু, বিধানসভায় বাম পরিষদীয় দলের নেতা সুজন চক্রবর্তী এবং উত্তর২৪পরগনার নেতা নেপালদেব ভট্টাচার্য একসময় এসএফআই-এর প্রথমদিকের শীর্ষ নেতৃত্ব। তাঁদের পাওয়া গিয়েছে।

বিমান বসুকে সভাপতি, সুজন চক্রবর্তীকে কার্যকরী সভাপতি এবং নেপালদেব ভট্টাচার্যকে সম্পাদক করে এসএফআই অভ্যর্থনা কমিটি তৈরি করেছে। উদ্দেশ্য, সুবর্ণ জয়ন্তী পালন করার জন্য যাবতীয় উদ্যোগ নেওয়া।

“দুনিয়ার ঘরে ঘরে স্লোগান ছড়িয়ে যাক। মাটিতে পায়ের ঝাঁক, চোখ আকাশে…।” মঞ্চের পিছনে বিশাল ব্যানারে লেখা। বক্তব্য রেখে এসএফআই-এর প্রবীণ-নবীনরা।

 

১৯৭০ সালে এসএফআই তৈরি হয়। সারা ভারতের ছাত্রদের নিয়ে ছাত্রসমাজকে এক ছাতার তলায় নিয়ে আসার চেষ্টা করা হয়েছিল। শিক্ষার মৌলিক বিকাশ, চাকরি, নিরাপত্তা এবং মানুষের গণতান্ত্রিক অধিকার রক্ষার লড়াই বজায় রাখতে তৈরি হয়েছিল এসএফআই।

বর্তমান এসএফআই দেশের বিভিন্ন রাজ্যের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে রয়েছে। হিমাচল প্রদেশ, দিল্লি, রাজস্থান, গুজরাট, পশ্চিমবঙ্গ, ত্রিপুরা, অসম, ওড়িশা, মহারাষ্ট্র, তেলেঙ্গানা, অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, করলে এসএফআই রয়েছে। এসএফআই একটি আন্তর্জাতিক সংগঠন। ওয়ার্ল্ড ফেডারেশন অফ ডেমোক্র্যাটিক ইউথ দ্বারা মান্যতা প্রাপ্ত। ৫০ বছর উপলক্ষে একটি একটি নতুন লোগোও বানানো হয়েছে।