স্টাফ রিপোর্টার, সিউড়ি: মাত্র ২৪ দিনের এক শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি না করার অভিযোগ উঠল হাসপাতালের বিরুদ্ধে৷ এমনকী, সিউড়ি সদর হাসপাতালের নবজাতক বিভাগের অভিযুক্ত ওই চিকিৎসক প্রেশক্রিপশনও ছিঁড়ে ফেলেন বলে অভিযোগ৷ ফলে এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সোমবার ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় ওই হাসপাতালে৷

যদিও ওই শিশু আপাতত সিউড়ি সদর হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন৷ তবে পরিবারের দাবি, চিকিৎসকের দুর্ব্যবহারের বিষয়ে অভিযোগ জানানোর পরই ওই শিশুকে ভর্তি নেওয়া হয়৷ তবে অভিযুক্ত চিকিৎসক এই দাবি মানতে নারাজ৷ তিনি তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন৷

সোমবার বীরভূমের লোকপুর থানার নাকড়াকোন্দা গ্রামের দুই অসুস্থ শিশুকে স্থানীয় প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়৷ দু’জনেই শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় ভুগছিল৷ তাদের সেখান থেকে সিউড়ি সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়৷ সেখান থেকে তাদের সিউড়ি সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়৷ পরিবারের সদস্যরা তাদের নিয়ে আসেন সিউড়ি হাসপাতালে৷

তাঁদের দাবি, একটি শিশুকে সঙ্গে সঙ্গে ওই হাসপাতালের নবজাতক বিভাগে ভর্তি করে নেওয়া হয়৷ কিন্তু ২৪ দিনের অন্য সদ্যোজাতকে ভর্তি নেওয়া হয়নি৷ ওই সদ্যোজাতর মা নাসিরা বিবির দাবি, চিকিৎসক কবিরাজ পাণ্ডে ভর্তি নিতে অস্বীকার করেন৷ তিনি প্রেসক্রিপশন ছিঁড়েও ফেলে দেন৷ পরে তাঁরা এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে৷ তার পর ভর্তি নেওয়া হয় ওই সদ্যোজাতকে৷

তবে অভিযুক্ত চিকিৎসক কবিরাজ পাণ্ডে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন৷ তাঁর পাল্টা দাবি, রোগী ছাড়াই চলে আসেন পরিবারের সদস্যরা৷ তাই তাঁদের রোগীকে নিয়ে আসতে বলা হয়৷ তাঁরা বিষয়টি বুঝতে না পারায় বাদানুবাদ হয়৷ উত্তেজনা ছড়ায়৷

এদিকে সিউড়ি হাসপাতালে চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ নতুন নয়৷ এর আগেও এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে৷ কিন্তু তা থেকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোনও শিক্ষা নেয়নি বলে দাবি করেছেন রোগীর আত্মীয়রা৷