স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: গাড়ির স্টিয়ারিং-এ বসে মোবাইলে কথোপকথন। মদ্যপ অবস্থায় চালকের আসনে বসা। পরিণতি ভয়ংকর দুর্ঘটনা। বহরমপুরে ব্রিজের রেলিং থেকে নদীতে বাস পরে যাওয়ার ঘটনার পর থেকে এই বিষয়গুলি নিয়ে সকলকে সচেতন করার কর্মসূচি শুরু করেছে জেলা প্রশাসন৷

সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ-এর এই মর্মকথাগুলি সম্পর্কে বাস, লরি ও অন্যান্য গাড়ির পর এবার অটো চালকদের সচেতন করার কাজ শুরু করল পুলিশ। মঙ্গলবার দক্ষিণ দিনাজপুরের সদর শহর বালুরঘাটে এই ব্যাপারে একটি কর্মশালার আয়োজন করেছিল ট্রাফিক পুলিশ।

স্থানীয় পৌর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বালুরঘাট থেকে যাতায়াতকারী ১০০-র ও বেশি অটো চালক ও মালিকদের নিয়ে সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফের বিশেষ সচেতনতা শিবির অনুষ্ঠিত হলো। শিবিরে অংশগ্রহণকারী চালক ও মালিকদের মদ খেতে অথবা কানে মোবাইল নিয়ে গাড়ি না চালানোর ব্যাপারে সতর্ক করা হয়েছে।

পাশাপাশি যাত্রী পরিবহণের ক্ষেত্রে ট্রাফিক আইন মেনে চলার বিষয়েও সকলকে সচেতন করেছে পুলিশ। সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ কর্মসূচিতে সামিল হওয়ার সুযোগ পেয়ে খুশি বালুরঘাট ও তার আশপাশের রুটে চলাচলকারী অটোর মালিক ও চালকরা। এদিনের শিবিরে পুলিশের তরফে উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি পুলিশ সুপার ধীমান মিত্র সহ অন্যান্য আধিকারিকরা।

বালুরঘাট ট্রাফিকের ওসি সঞ্জয় মুখোপাধ্যায় বলেছেন, ‘‘সাধারণ অসুখ-বিসুখের চাইতেও বেশি প্রাণহানির ঘটনা পথ দুর্ঘটনায়। যা প্রতিরোধের একটাই উপায় সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ মেনে চলা। এদিন অটো চালকদের বিশেষ ভাবে সচেতন করা হয়েছে৷ যাতে গাড়ি চালানো অবস্থায় কখনওই কেউ মোবাইল ব্যবহার না করেন। মদ্যপ অবস্থায় কখনওই যেন চালকের আসনে না বসেন।’’

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প