কৌশিক চট্টোপাধ্যায়, রায়গঞ্জ: অবশেষে কংগ্রেসের বিধায়ক তথা প্রাক্তন পুরপ্রধান মোহিত সেনগুপ্তের আগাম জামিনের আবেদন মঞ্জুর করলেন জেলা দায়রা আদালতের বিচারক বৈদ্যনাথ ভাদুরী। সোমবার রায়গঞ্জ জেলা দায়রা আদালতে অভিযুক্তের হয়ে জামিনের আবেদন করেন আইনজীবী অলোক ঝাঁ। সরকারপক্ষের আইনজীবী দেবাশিস গুহ জামিনের আবেদনের বিরোধিতা করেন৷ দীর্ঘ সওয়াল জবাবের পর বিচারক রায়গঞ্জের বর্তমান বিধায়ক মোহিত সেনগুপ্তের জামিন মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য রায়গঞ্জ পুরসভার চেয়ারম্যান থাকাকালীন সময়ে আর্থিক তছরুপের অভিযোগ এনে রায়গঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করেন পুরসভার বর্তমান প্রশাসক তথা এসডিও টিএন শেরপা। এরপর থেকেই জারি হয় গ্রেফতারি পরোয়ানা। জেলা কংগ্রেসের পক্ষ থেকে মোহিত বাবুর রাজ্যের বাইরে থাকার কথা জানিয়ে দেওয়া হয়। পুর নির্বাচনের আগে মোহিত বাবুকে রাজনৈতিক ভাবে ফাঁসানোর কথা বলে রায়গঞ্জ আদালতে আগাম জামিনের আবেদন করা হয়।

বৃহস্পতিবার তদন্তকারী অফিসার আদালতে অনুপস্থিত থাকার কারনে প্রাক্তন পুরপ্রধান মোহিত সেনগুপ্তের আগাম জামিনের শুনানি পিছিয়ে যায়। সোমবার তদন্তকারী অফিসার আদালতে কেস ডাইরি জমা দেওয়ায়। বিচারক সমস্ত দিক খতিয়ে দেখে দশ হাজার টাকা ব্যক্তিগত বন্ডে প্রাক্তন পুরপ্রধান আগাম জামিনের আবেদন মঞ্জুর করেন। সেই সঙ্গে কোনও কারণে এই কেসে আগামীতেও পুলিশ গ্রেফতার করলে দশ হাজার টাকা ব্যক্তিগত বন্ড এবং দু’জন জামিনদারের উপস্থিতিতে মোহিত বাবুকে জামিন দিতে হবে।

অন্যদিকে জামিনের খবর নতুন করে অক্সিজেন যোগায় কংগ্রেস শিবিরে। প্রাক্তন পুরপ্রধান মোহিত সেনগুপ্ত সাংবাদিক বৈঠক করে বলেন, ‘‘এভাবে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে এই জেলায় কংগ্রেসকে আটকানো যাবে না। মিথ্যা মামলা দিয়ে আর প্রলোভন দেখিয়ে রায়গঞ্জে কংগ্রেসকে দুর্বল করা যাবে না। বিগত দিনে ১৪ জন বিধায়ককে নিয়ে মহা মিছিল দেখেছে জেলাবাসি আর তাতেই প্রমাণ হয়েছে কংগ্রেসের শক্তি এই জেলায় কমছে না বেড়েই চলছে।’’