স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: দিনের পর দিন বোন ও বোনঝির অমানবিক অত্যাচারের শিকার এক মানসিক প্রতিবন্ধী রোগী৷ দিনের পর দিন নগ্ন করে ওই মানসিক প্রতিবন্ধী রোগীকে বাড়ির উঠানে ফেলে পেটানোর ঘটনায় উত্তর ২৪ পরগনার নিমতা থানার পুলিশের দ্বারস্থ প্রতিবেশীরা৷

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, নির্যাতিতা ওই বৃদ্ধা অবিবাহিতা৷নির্যাতিতার বোন রিতা ও তার বিবাহিত মেয়ে নন্দিতা কর্মকার নিদের পর দিন অত্যাচার চালাতো ওই বৃদ্ধার উপর৷ এই ঘটনা উত্তর ২৪ পরগনার নিমতা থানার অন্তর্গত ওলাই চন্ডীতলা এলাকার৷ নগ্ন করে বৃদ্ধাকে বাড়ির উঠানে ফেলে মারধরের সেই ছবি প্রতিবেশীরা গোপনে তোলে ঘটনার প্রমাণ হিসেবে৷ শনিবার সেই ছবি সংবাদ মাধ্যমের হাতে ও নিমতা থানার পুলিশকে দেওয়া হল প্রমাণ হিসেবে৷

জানা গিয়েছে, অসুস্থ ওই বৃদ্ধা গীতা দেবীর বোন রীতা, দিদি গীতার বাড়িতেই মেয়ে জামাই নিয়ে এসে উঠেছিলেন বছর খানেক আগে৷ওই বৃদ্ধার থেকে তার সম্পত্তি হাতিয়ে নেওয়ার জন্যই তাকে চরম শারীরিক নির্যাতন শুরু করে রীতা ও তার মেয়ে নন্দিতা৷ প্রতিবেশীরা সেই অত্যাচারের ছবি ক্যামেরা বন্দি করে শনিবার সন্ধ্যায় খবর দেয় সংবাদ মাধ্যমকে৷

প্রতিবেশীরা নির্যাতিতা বৃদ্ধার বোন রীতা, তার মেয়ে নন্দিতা ও ওই ঘর জামাইয়ের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি করেছে নিমতা থানার পুলিশের কাছে৷ পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে৷ অভিযুক্ত রীতা, নন্দিতা ও তার স্বামীকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ৷ তবে, এই ঘটনায় এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি৷ শনিবার বিকেলে ওই বৃদ্ধার বোনঝি নন্দিতা যখন গীতা দেবীর বাড়িতে ঢুকতে যান, তখন তাকেও গণধোলাই দেয় উত্তেজিত ওই পাড়ার মহিলারা৷ পরে নিমতা থানার পুলিশ অভিযুক্তদের থানায় ডেকে পাঠিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন৷

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব