স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: পঞ্চায়েত নির্বাচনের আগে সংগঠনকে চাঙ্গা করতে দুই দিনের সফরে কোচবিহারে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা জেপি নাড্ডা। গতকাল মাথাভাঙ্গার নজরুল সদনে মাথাভাঙ্গা ও শিতলকুচি বিধানসভা কেন্দ্রের দলের কার্যকারিণী বৈঠকের পর আজ কোচবিহার জেলা কার্যালয়ে কোচবিহার উত্তর ও দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের কার্যকারিণীদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি৷ এর পর কোচবিহার সুকান্ত মঞ্চে বাকি বিধানসভা কেন্দ্রের কার্যকারিণীদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি৷

বিজেপি সূত্রে খবর, কর্মীদের মানুষের পাশে থেকে কাজ করার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। সূত্রের খবর, রাজ্য সরকারের জনবিরোধী নীতিগুলির বিরুদ্ধে বিভিন্ন এলাকায় লাগাতার প্রচারের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। এছাড়াও বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করে প্রচারের কাজে জোর দিতে বলেন তিনি৷

সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘‘আমি এখানে কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের কর্মীদের সঙ্গে আলোচনা করতে এসেছি৷ বিধানসভা ভিত্তিক সব কর্মীদের সঙ্গে মিলিত হলাম৷” তিনি বলেন কর্মীদের মধ্যে উৎসাহ ও উদ্দীপনা প্রবল, তাঁরা সকলেই বিজেপিকে জয়ী করার কাছে নিয়োজিত রয়েছেন৷ এদিন কোচবিহার জেলা কার্যালয়ে কোচবিহার উত্তর ও দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের কার্যকারিণী বৈঠকের আগেই তিনি সুকান্ত মঞ্চে অনুষ্ঠিত হওয়া বিজেপির সংখ্যালঘু মোর্চার রাজ্য কার্যকারিণী বৈঠকে অংশ দেন।

এদিন তাঁর প্রতিটি বৈঠক ছিল রুদ্ধ দ্বার সেখানে সংবাদমাধ্যমের কোন প্রবেশাধিকার ছিল না। তবে, সূত্রের খবর সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহারের বিষয়ে জেপি নাড্ডা যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়েছেন, এছাড়াও আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনের ফলাফলের চিন্তা না করে মানুষের পাশে থেকে কাজ করার জন্য কর্মীদের নির্দেশ দিয়েছেন। এছাড়াও বাম ও তৃণমূল কংগ্রসের বিরুদ্ধে সমান তালে জনমত গঠনের পরামর্শ দিয়েছেন। এছাড়াও যে ভাবে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস এবং সিপিআইএমের বিজেপির সমালোচনা করছেন, তাতে রাজ্যে বিজেপির গুরুত্ব বাড়ছে ও এ রাজ্যে দ্বিতীয় দল হিসেবে উঠে এসেছে সেই বিষয়গুলিও কর্মীদের প্রচার করার পরমার্শ দেন। এদিন বিজপির রাজ্য সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘জেপি নাড্ডা উত্তরবঙ্গের আটটি লোকসভা কেন্দ্রের দায়িত্বে রয়েছেন৷ তাই এদিন কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত বিভিন্ন বিধানসভা গুলির কার্যকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছেন৷ বুথস্তর পর্যন্ত দলের সংগঠনের খোঁজ খবর নিয়েছেন।’’