আটারি সীমান্ত (পাঞ্জাব): বিকেল ৩টে থেকে ৪টের মধ্যে ওয়াঘা-আটারি সীমান্তে পৌঁছানোর কথা ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন। ইতিমধ্যে বর্ডারে পৌঁছে গিয়েছেন বায়ুসেনার উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা। রয়েছেন বিদেশমন্ত্রকের আধিকারিকরাও। কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয়েছে গোটা এলাকাকে। বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সকে হাই-অ্যালার্টে রাখা হয়েছে। আর নিরাপত্তার কারণেই আজ শুক্রবার ওয়াঘা-আটারি সীমান্তে বন্ধ রাখা হল Beating the Retreat ceremony। এমনটাই জানানো হয়েছে বিএসএফের তরফে।

প্রসঙ্গত, সকাল থেকেই অভিনন্দনের ভারতে ফেরার সময় সূচি নিয়ে বেশ কিছু ধন্দ তৈরি হয়। বিটিং দ্য রিট্রিটের আগে যদি অভিনন্দনকে ফেরানো যায় সেজন্যে চেষ্টা চালায় ভার‍ত। কারণ ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে দু দেশের এই শক্তি প্রদর্শন দেখতে বহু মানুষ ভিড় জমান। ফলে নিরাপত্তা সংক্রান্ত সমস্যা হতে পারে। আর সেই কারণে এই অনুষ্ঠানের আগেই ভারতে অভিনন্দনকে ফেরত পাওয়া চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু তা সম্ভব হয়নি। আর সেই কারণেই বাধ্য হয়ে এই অনুষ্ঠান বন্ধ রাখা হয়েছে বিএসএফের তরফে।

দেশে বীর সন্তান দেশে ফিরছে, আবেগে ভাসছে গোটা ভারত। কয়েক হাজার মানুষ ইতিমধ্যে ভিড় জমিয়েছেন ওয়াঘা সীমান্তে। কেউ জাতীয় পতাকা হাতে তো কেউ আবার ঢাক-ঢোল হাতে অভিনন্দকে স্বাগত জানাতে সীমান্ত জড়ো হয়েছেন। যত সময় এগোচ্ছে তত ভিড় বাড়ছে সেখানে। সবার মুখে একটাই আওয়াজ, অভিনন্দন জিন্দাবাদ। স্যালুট বির জওয়ানকে। ক্রমশ সীমান্ত এলাকায় ভিড় বাড়ায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা আঁটসাঁট করা হয়েছে। গোটা এলাকা কর্ডন করে দেওয়া হয়েছে। একটা জায়গার পর আর সেখানে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। বিএসএফকে হাই-অ্যালার্টে রাখা হয়েছে। কড়া নজরদারি চলছে। তবে যত সময় বাড়ছে উতক্ষন্টা বাড়ছে দেশের বীর সন্তানকে একবার দেখার জন্যে-