স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: গ্রামের রাস্তা তৈরিকে কেন্দ্র করে ফের উত্তেজনা ছড়ালো বাঁকুড়ার সিমলাপালের বিক্রমপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায়। দুই পক্ষের মধ্যে মারধোরের ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় এক জন হাসপাতালে ভর্তি। এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা রয়েছে।

খবরে প্রকাশ, গত কয়েক মাস আগে বিক্রমপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের গোপালনগর গ্রামে একটি রাস্তা তৈরিকে কেন্দ্র করে ব্রাহ্মণ ও এক আদিবাসী পরিবারের মধ্যে বিরোধের সূত্রপাত। আদিবাসী পরিবারটির অভিযোগ ছিল, তাঁদের ‘জমি জোর করে দখল করে’ রাস্তা তৈরি করা হচ্ছে। পরে প্রশাসনিক হস্তক্ষেপে সাময়িক কাজ বন্ধ থাকে।

সোমবার ফের নতুন করে ঐ রাস্তার কাজ শুরু হলে দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ চরমে ওঠে। তাঁদের জমি দখল করে রাস্তা তৈরিতে বাধা দিতে গেলে আদিবাসী পরিবারটির উপর গ্রামের ব্রাহ্মণরা চড়াও হয় বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় মামনি কিস্কু নামে একজন গুরুতর আহত। তিনি সিমলাপাল ব্লক হাসপাতালে চিকিৎসক।

আহত মামনি কিস্কুর স্বামী বিশ্বনাথ কিস্কু এবং তার মা ভারতী সরেননা ঘটনার বিবরণ দিয়ে বলেন, আমাদের জমির উপর রাস্তা তৈরিতে বাধা দিতে গেলেই গ্রামের উৎকল ব্রাহ্মণরা তাঁদের মারধোর করেছে। এই ঘটনা আগেও ঘটেছে বলে তাঁদের দাবি। যদিও এই বিষয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছে অভিযুক্তেরা।

তবে তৃণমূল নেতা ও সিমলাপাল পঞ্চায়েত সমিতির স্বাস্থ্য কর্মাধ্যক্ষ কাঞ্চন পাল বলেন, আদিবাসীদের জায়গার উপর গ্রামের মানুষ রাস্তা তৈরি করতে চাইছেন। বাধা দিতে গেলে মারধোরের ঘটনা ঘটছে। আলোচনায় বসে সমস্যার সমাধান সম্ভব বলে তিনি মনে করেন বলে জানান।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও