স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: মেরে লাভ নেই। মারলে মনোবল বাড়ে। দক্ষিণ শহরতলীর লেকটাউনে তাঁর উপর হামলার ঘটনা প্রসঙ্গে বলেছেন রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। শুক্রবার, লেকটাউন দক্ষিণদাঁড়িতে ন্যাশনাল ফ্রন্ট অফ ট্রেড ইউনিয়নের পক্ষ থেকে একটি চা-চক্রের আয়োজন করা হয়েছিল। পূর্বঘোষিত এই কর্মসূচি অনুযায়ী ওই জায়গায় এলাকার কর্মী-সমর্থকরা জড়ো হন।

তারা যখন দলীয় পতাকা লাগাতে যান সেই সময় একদল দুষ্কৃতী তাদের বাধা দেয়। অভিযোগ, বিজেপির দলীয় পতাকা ছিঁড়ে মাটিতে ফেলে দেওয়া হয়। সকালে সাড়ে সাতটা নাগাদ ঘটনাস্থলে যান রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সেখানে তাঁকে ঘিরে বিক্ষোভ শুরু হয়। শোনা যায়, ‘দিলীপ ঘোষ গো ব্যাক’ স্লোগান। কর্মী সমর্থকদের মারধর করার অভিযোগও ওঠে।

আরও পড়ুন : মোদীর ডিজিটাল ভারত পিছোচ্ছে, গোপন রিপোর্ট প্রকাশ করল আরবিআই

এই ঘটনা পুলিশ দাঁড়িয়ে দেখেছে বলে অভিযোগ করেন বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। বিজেপির স্থানীয় নেতাদের অভিযোগ, ওই চা-চক্রের উপর যারা হামলা করেছেন, তারা, মা মাটি মানুষ জিন্দাবাদ, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জিন্দাবাদ, স্লোগান দিচ্ছিলেন।

দুপুরে সেন্ট্রাল এভিনিউতে পথ অবরোধ করে বিজেপি যুবমোর্চা। ১৫ মিনিট পথ অবরোধের পর গ্রেফতার হন রাজ্য বিজেপি সাধারণ সম্পাদক রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় সহ অনেকে।

আরও পড়ুন : ‘মমতার জন্য বিজেপির দরজা খোলা’, বিধানসভায় এসে বললেন মুকুল

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জনপ্রিয় ‘চায়ে পে চর্চা’ – এর মতোই একই ধরণের কার্যক্রম করে জনসংযোগ ধরে রাখতে চাইছে বিজেপি। রাজ্য সভাপতি হিসাবে তিনি অনেক জায়গাতেই চা পানে গিয়েছেন। বিজেপির কথা মানুষকে বলেছেন। তবে দিলীপ ঘোষের উপর আক্রমণ আগেও হয়েছে। বেশ কয়েকবার তাঁর গাড়িও ভাঙচুর করা হয়েছে। দিলীপের বক্তব্য, তাঁর উপর আক্রমণ হলে কর্মীরা প্রতিবাদ করেন। তাতে তাঁদের মনোবল বাড়ে।