স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: ঘোষিত হল ২০১৫ ও ২০১৬ সালের ‘ত্রিবৃত্ত’ পুরস্কার প্রাপকদের তালিকা৷ আজ কোচবিহার প্রেস ক্লাবে এক সাংবাদিক বৈঠকে এই ঘোষণা করেন ত্রিবৃত্ত এওয়ার্ড একাডেমির  সভাপতি কবি রনজিৎ দেব। সঙ্গে ছিলেন ত্রিবৃত্ত পত্রিকার সম্পাদিকা শাস্বতী দেব ও মূল সভাপতি দ্বিগবিজয় দে সরকার।

২০১৫ সালের জন্য সাহিত্যে ত্রিবৃত্ত পুরস্কার পাচ্ছেন বেনু সরকার, এছাড়াও লোকসংস্কৃতির জন্য ত্রিবৃত্ত পুরস্কার পাচ্ছেন আবদুস সামাদ ও কলকাতার শামিয়ানা লিটিল ম্যাগাজিনের সম্পাদক শুদ্ধেন্দু চক্রবর্তী। ২০১৬ সালের উপন্যাস ‘ভরা জোয়ারে’র জন্য  পুরস্কার পাচ্ছেন অমলকৃষ্ণ রায় ও সাংবাদিকতার জন্য পাচ্ছেন সুমন কল্যান ভদ্র৷

আগামী ৫ নভেম্বর কোচবিহার ল্যান্সডাউন হলে পুরস্কার প্রাপকদের হাতে এই পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে। ১৯৭১-৭২ এ প্রথম লিটিল ম্যাগাজিন হিসেবে ত্রিবৃত্ত সম্মান দেওয়া শুরু করে। সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়, দেবেশ রায়, শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়, অমিয়ভূষণ মজুমদার, শক্তি চট্টোপাধায়ের মত নামী সাহিত্যকরা যখন বেশী পরিচিত ছিলেন না সেই সময় ত্রিবৃত্ত পুস্কার পেয়েছেন তাঁরা। বর্তমানে রাজ্যে একমাত্র ত্রিবৃত্ত এমন এক লিটিল ম্যাগাজিন যারা বড় মাপের এই পুস্কার প্রদান করছে।

রনজিৎ দেব জানান, ১৯৭৩ সালে যখন প্রথম এই পুরস্কার দেওয়া হয় সেই সময় উপস্থিত ছিলেন তৎকালীন কেন্দ্রীয় তথ্য ও বেতার মন্ত্রী আই কে গুজরাল, তৎকালীন কেন্দ্রীয় বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী প্রণব মুখোপাধ্যায় সহ বিশিষ্টজনেরা। তিনি আরও বলেন, বাংলা ভাষা ও সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করেছেন যাঁরা তাঁদের সম্মানিত  করতেই এই ত্রিবৃত্ত পুরস্কার।

ত্রিবৃত্ত পুরস্কার ছাড়াও এই মঞ্চে পূর্বোত্তর পুরস্কার প্রদান করা হবে কবি ও ছড়াকার শুভাশিস দাস  ও মিনতি স্মৃতি পুরস্কার দেওয়া হবে চিত্রশিল্পী করুণা ভট্টাচার্যকে৷ এছাড়াও মধুরিমা বর্মন স্মৃতি পুরস্কার দেওয়া হচ্ছে বাংলা দেশের কবি ও সম্পাদক সরোজ দেবকে। মূল সভাপতি দ্বিগবিজয় দে সরকার বলেন, বাংলার বাইরে বিভিন্ন রাজ্যে যেখানে বাংলা সাহিত্যের চর্চা হয়, সেই সব মানুষদেরও ত্রিবৃত্ত পুরস্কারের মধ্যে এনে এই পরিধি বৃদ্ধির পরিকল্পনা চলছে।